চা বিক্রি করে সাফল্যের দুয়ারে সেলিম

আপডেট: অক্টোবর ২১, ২০১৬, ১১:৪০ অপরাহ্ণ


চারঘাট প্রতিনিধি
সঠিক পরিকল্পনাকে বাস্তব রুপ দিতে পারলে সাফল্য নিজ দোয়ারে কড়া নাড়াবে। দেশ-বিদেশে বিরল চিত্র পত্রিকার পাতায় কখনো বা টেলিভিশনের পর্দ্দায় আলোকপাত হয়। চারঘাট উপজেলায় গৌড়শহরপুর গ্রামের মৃর্ত আ. হালিমের ছেলে সেলিম রেজা (২৫) তেমনি একটি দৃষ্টান্ত।
মোক্তারপুর উচ্চবিদ্যালয়ের সামনে একটি ‘চা’ স্টলের ছোট্ট সেলিম শিক্ষিত সুশিল মানুষের রুপ পেয়েছে। সেলিমের বিশ্লেষণী চোখে সাফল্যের ঝিলিক। গত ১৭ বছর থেকে সে ‘চা’ বিক্রি করে আসছে। রাস্তার পাশে এক টুকরো জমির উপর বাতির আলোতে ‘চা’ বিক্রি করে রাজশাহী কলেজে এমএ শেষ বর্ষে অধ্যয়ন করছে সেলিম রেজা।
এ বিষয়ে সেলিম হাস্যোজ্জল চোখে বলেন, ‘আমার বাবা মোক্তারপুর বিদ্যালয়ের সামনে চা বিক্রি করতেন। তখন হয়তো বাবা-ছেলে সম্পর্কের টানে চা দোকানে আসতাম এবং ক্রেতাদের সেবা করতাম। পাশে স্কুল থাকাই আমার পড়া-লেখার অগ্রহ জন্মায়। বাবার সহযোগিতায় বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে পড়াশোনা শুরু করি। কিন্তু হঠাৎ পিতার অকালমৃত্যু সবকিছু পাল্টে দিলো। বুনের তৈরী ছোট্ট ‘চা’ দোকানের হাল ধরি তখন। পরিবারে চার বোন, তিন ভাই এর মধ্যে সবার ছোট আমি। চা বিক্রি করে ২০০৮ সালে এসএসসি পরিক্ষায় জিপিএ ৫ আমার পড়ালেখার ভাবনাকে আরো গতি এনে দেয়। অর্থের অভাবে ভালো কলেজে ভর্তি হতে পারি নি। কিন্তু সরদহ কলেজ থেকে এইচএসসি এবং বিএসসি শেষ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে শেষ বর্ষে অধ্যায়নরত।
উপজেলা মোক্তারপুর উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘সেলিম সাহায্য-সহযোগিতা কামনা ছাড়ায় নিজ উদ্দোগে চা ব্যবসা আর কঠোর পরিশ্রম করে আজকের সেলিম রেজা। সাফল্য কামনা এবং ভবিষ্যতে ভালো একজন সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে সেলিমকে দেখতে চান স্থানীয়রা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ