চিকিৎসকরা কমিশন না নিলে রোগিদের চিকিৎসা ব্যয় ৪০ শতাংশ কমবে

আপডেট: নভেম্বর ৬, ২০১৬, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রামেক অডিটোরিয়ামে বক্তব্য দেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রাণ গোপাল দত্ত।
দেশের স্বনামধন্য চিকিৎসক প্রফেসর ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত বলেছেন, চিকিৎসকরা যদি ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে কমিশন নেয়া বন্ধ করেন তাহলে রোগিদের চিকিৎসা ব্যয় ৪০ শতাংশ কমে আসবে।
গতকাল শনিবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ অডিটোরিয়ামে ‘চিকিৎসক-ডাক্তার সম্পর্ক’ বিষয়ক এক সেমিনারে তিনি এ মন্তব্য করেন। সেমিনারে রামেক’র অধ্যক্ষ প্রফেসর মাসুম হাবিব, সকল চিকিৎসক ও নার্সরা উপস্থিত ছিলেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এই উপাচার্য বলেন, কমিশন বিজনেসের জন্য চিকিৎসকদের সম্মানে অবনমন ঘটেছে। চিকিৎসকদের উচিত হবে কমিশন গ্রহণের মতো ‘ম্যালপ্র্যাকটিস’ থেকে বেরিয়ে আসা। তাহলে চিকিৎসকরা হারানো সম্মান পুনরায় ফিরে পাবেন। বিভিন্ন দেশের উদাহরণ দিয়ে ড. প্রাণ গোপাল দত্ত জানান, পৃথিবীর সব দেশেই চিকিৎসকদের সর্বোচ্চ সম্মানের আসনে বসানো হয়। কিন্তু রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক কারণে বাংলাদেশে চিকিৎসকরা ততটা সম্মান পান না। এখানকার রোগিদের প্রত্যাশা চিকিৎসকদের কাছে অসীম। তবুও নীতি নৈতিকতা মেনে রোগিদের সাথে পেশাদারি সম্পর্ক গড়ে তোলারও আহ্বান জানান এ বিশিষ্ট নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ।
অনুষ্ঠানে সাবেক উপাচার্য ড. প্রাণ গোপাল দত্তকে ক্রেস্ট তুলে দেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মাসুম হাবিব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ