চিকিৎসা চলছে বিরল রোগে আক্রান্ত শিশু শাকিবার

আপডেট: আগস্ট ২৫, ২০১৭, ১:৩৭ পূর্বাহ্ণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ অফিস


চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিরল রোগে আক্রান্ত দুই বছরের শিশু শাকিবার চিকিৎসা শুরু হয়েছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তির পর পরই তাকে দেখতে আসেন তার চিকিৎসার জন্য গঠিত বোর্ডের সদস্যরা। প্রাথমিকভাবে কিছু পরীক্ষা-নিরিক্ষা দিয়েছেন চিকিৎসকরা।
সিভিল সার্জন ডা. কাজী শামীম হোসেন জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জে শাকিবার চিকিৎসা সম্ভব না হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হবে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের বিভিষণ গ্রামের কৃষক আবদুস সাত্তারের মেয়ে শাকিবা জন্মগতভাবেই বিরল একটি রোগে আক্রান্ত। তার বাবা আবদুস সাত্তার জানান, জন্মের পর থেকেই শাকিবার ডান কাঁধের নিচের অংশ (হাতসহ) অস্বাভাবিক হারে ফুলতে থাকে। গত দুই বছরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী ও ঢাকার বেশ কয়েকজন শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে শাকিবার চিকিৎসা করানো হয়। কিন্তু কোন চিকিৎসায় শিশুটিকে সুস্থ্য করে তুলতে পারে নি। বর্তমানে তার ডান কাঁধের নিচ থেকে হাত ও পেট পর্যন্ত অস্বাভাবিক মাংসপি- তৈরি হয়ে ফুলে গেছে। শাকিবার অসুস্থ্য হওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালকের নির্দেশে বুধবার বিকেলে অ্যাম্বুলেন্সে করে ওই শিশুকে তার বাড়ি থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। বর্তমানে শিশুটিকে হাসপাতালের দুই নম্বর কেবিনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
শাকিবার চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. আয়শা জুলেখার নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বোর্ডের অন্য দুই সদস্য হলেন- শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. বেনজির হোসেন ও ডা. আবুল কাশেম। গতকাল সকালে শিশুটির বুক ও ডানহাতের এক্সরেসহ রক্তের বিভিন্ন পরীক্ষা করা হয়। চিকিৎসকদের ধারণা, শিশুটি লিল্ফ্যাটিক, ফাইলেরিয়াসিস অথবা হেমাংজিওমা রোগে আক্রান্ত। পরীক্ষা নিরীক্ষা করে রোগ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. কাজী শামীম হোসেন জানান, শাকিবাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে সরকারি খরচেই চিকিৎসার সব ব্যবস্থা করা হবে। জেলায় তার চিকিৎসা সম্ভব না হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হবে বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ