চিনকে পালটা মারের প্রস্তুতি, এবার সামরিক মহড়া শুরু করল তাইওয়ানের ফৌজ

আপডেট: আগস্ট ৯, ২০২২, ৪:৪০ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


চিনকে পালটা মারের প্রস্তুতি। আগ্রাসী লালফৌজকে জবাব দিতে এবার সামরিক মহড়া শুরু করল তাইওয়ানের সেনাবাহিনী। যুদ্ধের পরিস্থিতিতে কীভাবে চিনা হানাদার বাহিনীকে রুখে দেওয়া যাবে সেই কৌশল ঝালিয়ে নিতেই এই মহড়া বলে খবর।

এএফপি সূত্রে খবর, মঙ্গলবার থেকে সামরিক মহড়া শুরু করেছে তাইওয়ান। পরিস্থিতির গুরুত্ব কতটা, তা স্পষ্ট করে ‘লাইভ ফায়ার ড্রিল’ অর্থাৎ আসল গোলা ছুঁড়ে লড়াইয়ের কৌশল ঝালিয়ে নিচ্ছে স্বশাসিত দ্বীপরাষ্ট্রটির গোলন্দাজ বাহিনী। তাইওয়ানের সেনার অষ্টম আর্মি কোরের মুখপাত্র লউ ওয়েই জাই জানিয়েছেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চলের পিংটাং প্রদেশে সামরিক মহড়া শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার এই দু’দিন হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কৌশল ঝালিয়ে নেওয়া হবে। তাইওয়ানের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, এই মহড়ায় অংশ নিচ্ছে প্রায় ৪০টি হাউৎজার কামান ও হাজারেরও বেশি সেনা।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে মার্কিন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরের পর থেকেই প্রচন্ড আগ্রাসী হয়ে উঠেছে চিন। যুদ্ধের আশঙ্কা উসকে স্বশাসিত দ্বীপরাষ্ট্রটিকে ‘অবরোধ’ করে সামরিক মহড়া শুরু করে লালফৌজ। তাইওয়ান প্রণালী ও সংলগ্ন অঞ্চলে রীতিমতো যুদ্ধের প্রস্তুতি চালাচ্ছে কমিউনিস্ট দেশটি। এহেন পরিস্থিতিতে যুদ্ধ শুরু হলে হানাদার বাহিনীকে পালটা মার দিতে তৈরি হচ্ছে তাইওয়ানের সেনা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমধ্যম সূত্রে খবর, তাইওয়ানের মোট ছ’টি বড় বন্দরকে নিশানা করছে চিন। রাজধানী তাইপেইয়ের পাশাপাশি উত্তরের কিলুং, পশ্চিমের সুয়াও এবং হুয়ালিয়েন, দক্ষিণ তাইওয়ানের কাওশিয়ুং এবং পূর্বের তাইচুয়াং বন্দর রয়েছে এই তালিকায়। চিনা জে-২০ স্টেল্থ ফাইটার জেট, টাইপ ০৫-২ডি ডেস্ট্রয়ার গোত্রের যুদ্ধজাহাজ এবং বেশ কিছু ছোট দ্রুতগতিসম্পন্ন কর্ভেট জলযান তাইওয়ানের জলসীমা লাগোয়া এলাকায় কার্যত বেড়াজাল তৈরি করেছে।

এদিকে, তাইওয়ান ঘিরে চলা নজিরবিহীন সামরিক মহড়া শেষ না হতেই কোরীয় উপদ্বীপের কাছে ইয়েলো সি বা পীত সাগর এবং লাগোয়া বোহাই সাগরে নতুন সামরিক মহড়া শুরুর করার কথা ঘোষণা করেছে লালফৌজ। চিনের নৌ চলাচল নিরাপত্তা বিষয়ক সংস্থা ঘোষণা করেছে, পীত সাগরে মহড়া চলবে আগস্টের ১৫ তারিখ পর্যন্ত। অন্যদিকে চিনের পূর্বাঞ্চলীয় উপকূলে বোহাই সাগরে অগাস্টের ৮ তারিখ সোমবার থেকে মহড়া শুরু হয়েছে। চলবে এক মাস ধরে।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন