চূড়ান্ত রায়ে মুরসির ২০ বছরের কারাদ-

আপডেট: অক্টোবর ২৩, ২০১৬, ১০:০০ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
মিশরের একটি আদালত চূড়ান্ত রায়ে দেশটির ক্ষমতাচ্যুত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহামেদ মুরসির ২০ বছরের কারাদ- নিশ্চিত করেছে। শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত হয় বলে দেশটির বিচার বিভাগীয় একটি সূত্র জানিয়েছে।
২০১২ সালে সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীদের হত্যার ঘটনায় মুরসিকে দোষী সাব্যস্ত করে এই দ- দেয়া হয়। মুরসিকে দেয়া চারটি দ-ের মধ্যে এই প্রথম কোনো দ-ের সব ধরনের আইনি প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। এই দ-ের বিরুদ্ধে তিনি আর আপিল করতে পারবেন না।
তৎকালীন ক্ষমতাসীন মুসলিম ব্রাদারহুডের অন্য বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ রাজনীতিকের বিরুদ্ধেও ২০ বছরের কারাদ- নিশ্চিত হয়েছে। এদের মধ্যে মোহামেদ এল- বেলতাগি এবং এসাম এল-এরিয়ানও রয়েছেন।
২০১৫ সালের এপ্রিলে এই নেতাদের দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল। তাদের বিরুদ্ধে ২০১২ সালে মিশরে সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভরতদের অপহরণ, নির্যাতন ও হত্যার অভিযোগও রয়েছে।
মুসলিম ব্রাদারহুড বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছে।
মিশরের নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুডের নেতা মুরসি অন্য তিনটি মামলায় দ-িত হয়েছেন। এসবের মধ্যে সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মুবারকের বিরুদ্ধে ২০১১ সালে গড়ে ওঠা গণঅভ্যুত্থানের সময় জেল ভেঙে পালানোর ঘটনায় তাকে মৃত্যুদ- দেয়া হয়।
এছাড়াও ফিলিস্তিনি গোষ্ঠী হামাসের পক্ষে গোয়েন্দাগিরির অভিযোগে যাবজ্জীবন কারাদ- দেয়া হয়।
মিশরের প্রথম অবাধ ও গণতান্ত্রিক নির্বাচনে জয়ী হয়ে মিশরের প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন ব্রাদারহুডের মুরসি। কিন্তু ২০১৩ সালে গণঅসন্তোষের সুযোগ নিয়ে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করে মিশরীয় সেনাবাহিনী।
এরপর মুসলিম ব্রাদারহুডের বিরুদ্ধে ব্যাপক দমনপীড়ন চালায় সেনা-সরকার। এক পর্যায়ে মুসলিম ব্রাদারহুডকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। মুরসি ছাড়াও সংগঠনটির হাজারা হাজার নেতাকর্মী কারাবন্দি আছেন। বিভিন্ন অভিযোগে এদের অনেককে মৃত্যুদ- দেয়া হয়েছে।- বিডিনিউজ