চড়তে গিয়েছিলেন আগ্নেয়গিরির শিখরে, ফাটলে পড়ে বিষাক্ত ধোঁয়ায় মৃত তরুণী

আপডেট: জুন ২৫, ২০২২, ১:১৬ অপরাহ্ণ

পপোকেটপেটল আগ্নেয়গিরি।

সোনার দেশ ডেস্ক :


পিকনিকে নয়, আগ্নেয়গিরির শিখরে তিনি গিয়েছিলেন আরোহণে। কিন্তু গিরিশিরার একটি ফাটলে পড়ে গিয়ে বিষাক্ত ধোঁয়ায় মৃত্যু হল মেক্সিকোর ২২ বছরের তরুণী এক পর্বতারোহীর। ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন তাঁর এক সঙ্গী।

মেক্সিকোর পর্বতারোহীদের সংগঠন ‘মাউন্টেন রেসকিউ অ্যান্ড অ্যাসিস্ট্যান্স ব্রিগেড’ জানিয়েছে, শুক্রবার পপোকেটপেটল আগ্নেয়গিরির শিখর থেকে প্রায় ৩০০ মিটার নীচে দুর্ঘটনাটি ঘটে। সংগঠনের তরফে জানানো হয়েছে, ছাই-ভর্তি ওই ফাটল থেকে গত তিন দশক ধরে অবিরাম ধোঁয়া বেরোচ্ছে।

পর্বতারোহীদের ওই ফাটলের কাছে যাওয়া নিষেধ। তাঁদের বিকল্প পথে ৫,৪২৬ মিটার (প্রায় ১৮ হাজার ফুট) উঁচু পপোকেটপেটল শিখর আরোহণ করতে হয়। কিন্তু মৃত তরুণী এবং তাঁর সঙ্গী সেই নিষেধাজ্ঞা না মেনে ফাটলের পাশ দিয়ে শিখরে চড়তে গিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।

‘বিশ্বাসঘাতক’ শিন্ডেকে চ্যালেঞ্জ উদ্ধবের, বহিষ্কারের অঙ্কে কী হতে পারে বিধানসভায়?
দুর্ঘটনার খবর পেয়েই ‘মাউন্টেন রেসকিউ অ্যান্ড অ্যাসিস্ট্যান্স ব্রিগেড’-এর স্বেচ্ছাসেবকেরা নিকটবর্তী ওজুম্বা শহর থেকে সেই ফাটলের কাছে যান। প্রায় ৫০ মিটার গভীর খাদ থেকে উদ্ধার করা হয় তাঁর দেহ।

পাহাড়ের খাঁজ থেকে তাঁর আহত সঙ্গীকেও উদ্ধার করেন স্বেচ্ছাসেবকেরা। ওজুম্বার মেয়র ভ্যালেন্টিন মার্টিনেজ কাস্টিলো জানিয়েছেন, মৃত তরুণী তাঁরই শহরের বাসিন্দা।
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা