ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় আটক শিক্ষককে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ || এলাকাবাসীর অভিযোগ দায়ের

আপডেট: এপ্রিল ৭, ২০১৭, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ণ

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি


চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের যোগসাজসে অভিযুক্ত আটক শিক্ষককে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল শেষে অধ্যক্ষ ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি বরাবর অভিযোগ দাখিল করেছে এলাকাবাসী।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা হাজী এহশান আলি কারিগরি কামিল মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক নিয়াজ উদ্দিন গত ৫ এপ্রিল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একই প্রতিষ্ঠানের জনৈক ছাত্রীকে (দাখিল পরীক্ষা দিয়েছে) নিয়ে বিনোদপুর ইউনিয়নের সাতরশিয়া গ্রামের রেফাউল ইসলামের ফাঁকা বাড়িতে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হয়। এসময় এলাকাবাসী তাদের দুইজনকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাদের থানায় নিয়ে যায়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার আওয়ামী লীগের কয়েকজন ব্যক্তি জানান, অভিযুক্ত শিক্ষক নিয়াজ উদ্দিন জামায়াতের একজন শীর্ষ ক্যাডার। কিন্তু মনাকষা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ কয়েকজন প্রভাবশালী নেতার প্রচেষ্টায় মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে গভীর রাতে থানা হতে তাদের ছাড়িয়ে আনেন। পরের দিন সকাল ১০টার দিকে এলাকার শত শত লোক মাদ্রাসা মাঠে বিক্ষোভ মিছিল করে ও শেষে মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি বরাবর স্বাক্ষরিত অভিযোগপত্র দাখিল করেন এলাকাবাসী।
মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সাদিকুল ইসলাম ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি তোহিদুল আলম টিয়া জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে স্টাফদের নিয়ে আলোচনা করেছি। শুক্রবার সকালে পরিচালনা কমিটির সভা ডাকা হয়েছে। সেই সভায় অভিযুক্তর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এ ঘটনায় শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাবিবুল ইসলাম হাবিব জানান, এলাকাবাসীর মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে থানায় আনা হয়েছিল। কিন্তু জিজ্ঞাসাবাদে কোন অভিযোগ না পাওয়ায় তাদের উভয়কে নিজ নিজ অভিভাবকের কাছে হস্তান্তর করা হয়।