‘জনগণের নিরাপত্তায় সরকারের নতুন পদক্ষেপ নেয়া উচিত’

আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০২০, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক


‘ভারত প্রতিনিয়ত সীমান্তে হত্যাকান্ড করে চলেছে। এদেশের মানুষ নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়ছে। এতে সরকারের কোনো পদেক্ষপ নেই। যার ফলাফল শতশত বাংলাদেশির লাশ। জনগণের নিরাপত্তার জন্য সরকারকে নতুনভাবে পদক্ষেপ নেয়া উচিত।’
সম্প্রতি বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধা নূর হোসেন এ কথা বলেন। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের (রাবি) কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধনে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ছালেহ হাসান নকীব বলেন, ‘সীমান্তে একতরফা হত্যাকান্ড ঘটেই যাচ্ছে। কিন্তু সরকার এর বিরুদ্ধে কার্যকরী কোন প্রতিবাদ করছে না। ভারতের সঙ্গে এমন আরো পাঁচটি দেশের অভিন্ন সীমান্ত রয়েছে। সেখানে তারা অন্যায়ভাবে এমন হত্যাকান্ড ঘটাতে সক্ষম হয় না। শুধু প্রতিবাদ না করাতেই সীমান্তে ভারতীয় সৈন্য কর্র্তৃক প্রতিবছর শতশত বাংলাদেশিকে অন্যায়ভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়। যা আন্তর্জাতিক আইনের বরখেলাফ।’
পপুলেশন সায়েন্স বিভাগের ছাত্র আমান উল্লাহ বলেন, সীমান্তে বাংলাদেশিদের গুলি করে হত্যা করার অধিকার ভারতের নেই। আমরা ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে চাই সমঝোতার মাধ্যমে। এদেশের মানুষের লাশ দিয়ে নয়। রাষ্ট্রের দায়িত্বে থাকা সরকারের উচিত এদেশের মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।
বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মোরশেদুল আলমের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পদক মিলন, রাকসু আন্দোলন মঞ্চের সমন্বয়ক আব্দুল মজিদ অন্তর, বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী অর্বাক আদিত্য, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দুলা, প্রবীণ সাংবাদিক মাহমুদ জামাল কাদেরি প্রমুখ।