জনসনের বেবি পাউডার যুক্তরাষ্ট্রের বাজার থেকে প্রত্যাহার বাংলাদেশ থেকে নয় কেন!

আপডেট: অক্টোবর ২১, ২০১৯, ১:২৩ পূর্বাহ্ণ

মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানি জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি বেবি ট্যালকম পাউডারে ক্যানসারের উপাদান অ্যাসবেস্টস থাকায় বাজার থেকে সেসব পণ্য তুলে নেয়া হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থার সমীক্ষার প্রতিবেদনে পর এমন পদেক্ষপ নিল কোম্পানিটি। এ সংক্রান্ত একপি প্রতিবেদন দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।
সমীক্ষা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি বেবি ট্যালকম পাউডারে পাওয়া গেছে ক্ষতিকারক অ্যাসবেস্টসের গুঁড়া। যা শিশুদের জন্য অত্যন্ত বিপজ্জনক। স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থার হাতে এমন অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার জেরে বাধ্য হয়েই মোট ৩৩ হাজার বেবি পাউডারের কৌটা বাজার থেকে তুলে নিল তারা।
মার্কিন স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানিয়েছে, এই প্রথম জনসন অ্যান্ড জনসনের বেবি পাউডারে অ্যাসবেস্টসের নমুনা পাওয়া গেছে। অ্যাসবেস্টস শিশু শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক। এর সংস্পর্শে এলে ক্যানসার পর্যন্ত হতে পারে।
তবে এটাই প্রথম নয় এর আগেও একাধিকবার জনসন অ্যান্ড জনসনের পণ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ভারতেও একাধিকবার পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসনের পণ্য। দীর্ঘদিন ধরে গোটা বিশ্বে কোম্পানিটির পাউডারের ব্যবসা। কিন্তু এমন খবর জানার পর প্রতিনিয়ত তাদের শেয়ারে দরপতন হচ্ছে।
জনসন অ্যান্ড জনসনের পণ্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাজারজাত হয়। বাংলাদেশেও বেশ জনপ্রিয়। তাদের বেবি ট্যালকম পাউডারে দেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে। এখনো বাংলাদেশের স্বাস্থ্য বিভাগ এ ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানা নেই। যুক্তরাষ্ট্রের বাজার থেকে টেলকম পাউডার প্রত্যাহৃত হলেও বাংলাদেশে তেমন কোনো উদ্যোগ নেয়া হয় নি। জনসন অ্যান্ড জনসন কোম্পানি অন্য দেশ থেকে বেবি পাউডার তুলে নিবে এমন কোনো নিশ্চয়তাও নেই। কোম্পানি এ ক্ষেত্রে দ্বিমুখি নীতি গ্রহণ করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের বেলায় এক নীতি এবং অন্য দেশের জন্য অন্য নীতিÑ এটা হতে পারে না। এ ব্যাপারে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য বিভাগকেই উদ্যোগি হতে হবে। যেমন ভারত সে উদ্যোগ নিয়ে নিশ্চিত হয়েছে যে, বেবি পাউডার নিয়ে সমীক্ষাতথ্য সঠিক।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ