জলাশয় রক্ষায় কুয়েট শিক্ষার্থীর ডব্লিউ বোট

আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০১৬, ১২:১১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। নদী, খালবিল জলাশয়ের অভাব নেই। কিন্তু সভ্যতার অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে দিন দিন এইসব জলাশয় দূষিত হচ্ছে।
অপরিকল্পিতভাবে ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে জলাশয়গুলো কখনো কখনো ব্যাবহারের অনুপযোগী হয়ে উঠছে। যার সবচেয়ে বড় উদাহরণ হল বুড়িগঙ্গা। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, প্রতিদিন ঢাকা শহর থেকে ৪৫০০টন ময়লা আবর্জনা তৈরি হয়।
এমনকি শুধু এই আবর্জনা নয়, দুর্ঘটনার কারণেও দূষিত হচ্ছে জলাশয়। যেমন বছর দুয়েক আগে সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে তেলবাহী জাহজ ডুবে তেল ছড়িয়ে পরার ঘটনা। এই জলাশয় বাঁচাতে সমাধান হতে পারে ডব্লিউ বোট (ড-ইঙঅঞ)।
এই ডব্লিড বোট ধারণার উদ্ভাবক খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী। একজন ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের জায়েদুর রহমান এবং অন্যজন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রেম আগারওয়াল।
তাদের পরিকল্পনার ডব্লিউ বোট মূলত একটি রিমোট কন্ট্রোল রোবট। এটি নদী কিংবা জলাশয় এর ভেসে থাকা ময়লা দূর করবে। ডব্লিউ বোট বাতাসের শক্তি ব্যবহার করে চলবে এটির সামনে থাকবে একটি রোবটিক হাত। যা জলাশয়ের ভেসে থাকা ময়লা সংগ্রহ করবে এবং সংগৃহীত আবর্জনা এর পেছনে থাকা একটি বাক্সে জমা করবে।
ডব্লিউ বোট এর সঙ্গে থাকা একটি ঘূর্ণায়মান ক্যামেরা এটির নিয়ন্ত্রককে আশেপাশের চিত্র পাঠাবে। এই ডব্লিউ বোট এর সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হল, এটি জলাশয়ের থাকা কেমিক্যাল এর স্তর শোষণ করে নিতে পারে। যা আমাদের সুন্দরবনে ঘটে যাওয়া শ্যালা নদীর মতো কেমিক্যাল দুর্ঘটনা থেকে দ্রুত রক্ষা করবে। ফলে জীববৈচিত্র ক্ষতির হাত থেকে বাঁচবে।
একটি কার্যক্ষম ডব্লিউ বোট বানাতে খরচ পরবে আনুমানিক দুই লাখ টাকা। যা আমাদের জলাশয়গুলোকে ক্রমেই মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাওয়া থেকে বাঁচাবে। রাইজিংবিডি