জাতির পিতার জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপনে রাজশাহীতে কর্মসূচি

আপডেট: মার্চ ১৫, ২০২১, ৯:১৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


আগামী ১৭ মার্চ বুধবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মের শতবর্ষ পূর্তি ও জাতীয় শিশু দিবস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে উদযাপনের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন নানান কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।
রাজশাহী জেলা প্রশাসন :
সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জেলা পুলিশ লাইন্সে তোপধ্বনি ও সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত এবং বেসরকারি ভবন সমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল নয়টায় রাজশাহী জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, সাড়ে নয়টায় রাজশাহী জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে জন্মদিনের কেক কাটা, আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। এদিনে শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও মহান মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক পুস্তক ও ডকুমেন্টারি এবং ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ প্রচার করা হবে। বাদ যোহর মসজিদ, মন্দির, গীর্জা, প্যাগোডাসমূহে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক সকলধর্মীয় উপসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করা হবে। হাসপাতাল, কারাগার, শিশু পরিবার, শিশুসদন, শিশুবিকাশ কেন্দ্র, ছোটমনিনিবাস ও সকল এতিমখানায় এতিম এবং দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে মিষ্ঠান্ন বিতরণ ও উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।
রাজশাহীর সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আলোচনা সভা, রচনা প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি রাজশাহী বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়াও শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, স্থাপনা, সরকারি আধাসরকারি বেসরকারি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও ভবনসমূহে সৌন্দর্যবর্ধন, আলোক সজ্জাকরণ ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা আভিযান পরিচালিত হবে। সন্ধ্যা ৭ টায় রাজশাহী শিল্পকলা একাডেমিতে জাতির পিতার জীবন ও কর্ম নির্ভর নাটক ‘বাতিঘর’ মঞ্চায়ন করা হবে।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় :
দিবসটি উদযাপনের জন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সকাল ৭ টা ৪৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, বিভিন্ন হল, শিক্ষক সমিতিসহ অন্যান্য সংগঠনের আয়োজনে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ সকাল ১০টায় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে আলোচনা সভা।
বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ ও ইন্সটিটিউট এবং শেখ রাসেল মডেল স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্য শেখ মুজিবুর রহমানের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ থেকে পৃথক অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা। একই সময়ে রাবি স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্য ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও ‘কারাগারের রোজনামচা’ থেকে অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। দুপুর ১২টায় এবং বিকেল ৫টায় রহমতুন্নেসা হল ও হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’ উদ্বোধন এবং বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। পরে সন্ধ্যা ৭টায় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে ৭ মার্চের রচনা ও ১৭ মার্চের কুইজ প্রতিযোগিতা বঙ্গবন্ধু ঢাকা ম্যারাথনের পুরস্কার বিতরণ ও জাতির পিতার জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটা হবে।
সমাজসেবা অধিদফতর :
দিনটি উদযাপনের জন্য সকাল ৭ টায় পতাকা উত্তোলন, সাড়ে সাতটায় সকল নিবাসী শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ, সাড়ে আটটায় আনন্দ র‌্যালি সাড়ে নয়টায় চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা, ১১ টায় মিলাদ মাহফিল, ১২ টায় কেক কেটে বেলুন ওড়ানো, দুপুরে শিশুদের মাঝে উন্নত মানের খাবার বিতরণ, বিকেল ৩ টা থেকে ৫ পর্যন্ত আলোচনা সভা, পুরুষ্কার বিতরণ, নিবাসী শিশুদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ৫ টায় বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন কার্যক্রমের উপর ভিডিও চিত্র প্রদর্শন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ