জাতীয় আদিবাসী পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অনিল মারান্ডী’র ৩য় মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

আপডেট: জানুয়ারি ৭, ২০২২, ১০:১১ অপরাহ্ণ


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:


জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অনিল মারান্ডী’র ৩য় মৃত্যু বার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সকাল ১১টা রাজশাহী জেলার গোড়াগাড়ী উপজেলার লালমাটিয় (পাঁচগাছিয়া) গ্রামে অনিল মারান্ডী’র সমাধিতে শ্রদ্ধার্ঘ নিবেন এবং বেলা ১২টায় সুন্দরপুর গনপাঠশালা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কাঁকনহাট শেওড়াপাড়া থেকে লালমাটিয় (পাঁচগাছিয়া) পর্যন্ত শোক র‌্যালি বের করা হয়।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বিমল চন্দ্র রাজোয়াড় এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক সবিন চন্দ্র মুন্ডা, সহ-সাধারণ সম্পাদক গনেশ মার্ডি, দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নরেন পাহান, কেন্দ্রীয় সদস্য বিভূতীভূষণ মাহাতো, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সভাপতি বিচিত্রাতির্কী, রাজশাহী জেলা সাধারন সম্পাদক সুসেন কুমার শ্যাম দুয়ার, রাজশাহী মহানগর সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রিয়াস বিশ্বাস, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সাধারণ সম্পাদক টুনু পাহান, গোদাগাড়ী উপজেলা সাবেক সভাপতি নন্দলাল টুডু, সভাপতি রবীন হেমব্রম, প্রয়াত অনিল মারান্ডীর ছেলে লেমন মারান্ডী, আদিবাসী যুব পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি নবদ্বীপ লাকড়া, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান, সাধারণ সম্পাদক তরুন মুন্ডা, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিলীপ পাহান, গোদাগাড়ী পৌর পারগানাধনাইসরেন, সুন্দরপুর গণপাঠশালার সহকারী শিক্ষিকা এলিজাবেথ মুর্মু প্রমূখ। এছাড়াও আদিবাসী পরিষদের বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ সহ এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভায় প্রয়াত অনিল মারান্ডী’র আদিবাসী অধিকার আদায়ের জীবন সংগ্রাম তুলে ধরেন বক্তারা। বক্তারা বলেন, অনিল মারান্ডী আদিবাসী অধিকারের আন্দোলন সংগ্রামের নেতৃত্বের এক অন্যতম লড়াকু যোদ্ধা। তিনি ছিলেন আদিবাসী তথা শোষিত-বঞ্চিত-নিপীড়িত মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার ও রাজপথের লড়াকু সৈনিক। অনিল মারান্ডী ছিলেন আদিবাসী আন্দোলনের স্বপ্নদ্রষ্টা। তিনি আদিবাসীদেরকে অধিকার আদায়ের সংগ্রামের পথ দেখিয়েছিলেন। জাতীয় আদিবাসী পরিষদ প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে উত্তরবঙ্গের তথা সমতলের আদিবাসীদের অধিকারের কথা রাষ্ট্র তথা সারা বিশ্বে পৌঁছে দিয়েছিলেন। তাঁর সংগ্রামী আদর্শকে ধারণ করে আদিবাসীদের অধিকার আদায়ের আন্দোলন সংগ্রামকে গতিশীল ও বেগবান করার অঙ্গিকার করেন নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অনিল মারান্ডী ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি সোমবার রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার পাঁচগাছিয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। ৎতিনি ১৯৯৩ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি এবং পরবর্তীতে কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালনকরেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ