জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবস পালন জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে রাজশাহী বিভাগ দ্বিতীয়বার চ্যাম্পিয়ন হতে যাচ্ছে : বিভাগীয় কমিশনার

আপডেট: অক্টোবর ৬, ২০২২, ৩:১৫ অপরাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক :


প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফরউল্লাহ্ এনডিসি বলেন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন আইন- ২০০৪ এর ৮ ধারা অনুযায়ী সবাইকে জন্ম ও মৃত্যুর দেড় মাসের মধ্যে নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই মহতি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন শতভাগ নিশ্চিত করতে বিভাগীয় পর্যায়ে টাস্ক ফোর্স কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এরই ফলশ্রুতিতে গত বছর রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলার মধ্যে ৬টি জেলাই জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে সাফল্য দেখিয়েছিল। চলতি বছরের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে দেশের শীর্ষে অবস্থান করছে রাজশাহী বিভাগের সাত জেলা। জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে রাজশাহী বিভাগ দ্বিতীয় বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হতে যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবস’ এর আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফরউল্লাহ্ এনডিসি বলেন, সঠিক নিবন্ধন না থাকায় অনেকে বয়স লুকান। ফলে নির্ভুল জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন না থাকার কারণে শুদ্ধ তথ্যভাÐার গঠন করা সম্ভব হয় না। নতুন আইনের কারণে আর সেটা সম্ভব হবে না। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের জন্য ২০৩০ সালের মধ্যে ৮০ শতাংশ মানুষকে নিবন্ধনের আওতায় আনার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

এক্ষেত্রে মাঠ পর্যায়ে জেলা প্রশাসক, ইউএনও, স্থানীয় সরকার শাখার সকল কর্মকর্তাবৃন্দের প্রচেষ্টায় এই সফলতা এসেছে।
এর আগে, ‘নির্ভুল জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন করব শুদ্ধ তথ্যভাÐার গড়ব’- এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালি শেষে বেলুন-ফেস্টুন উড়িয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে রাজশাহী বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল এঁর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার পরিচালক মো. এনামুল হক।
সভায় জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার উপপরিচালক শাহানা আখতার জাহান দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।
মুক্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী সিভিল সার্জন ডা. আবু সাঈদ মোহাম্মদ ফারুক, বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) এর কার্যালয়ের বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. আনোয়ারুল কবীর, রাজশাহী প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইদুর রহমান, ব্রাক এনজিও প্রতিনিধি মহসিন আলী, ইউনিসেফ প্রতিনিধি।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার উপ পরিচালক ড. চিত্রলেখা নাজনীন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মুহাম্মদ শরিফুল হকসহ জেলার বিভিন্ন দফতরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

উল্লেখ্য, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের হিসাব অনুযায়ী ২০২১-২২ অর্থ বছরে নওগাঁ বিভাগীয় পর্যায়ে ১ম এবং জাতীয় পর্যায়ে ২য় অবস্থানে রয়েছে। এছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিভাগীয় পর্যায়ে ২য় এবং জাতীয় পর্যায়ে ৩য় অবস্থানে রয়েছে, পাবনা বিভাগীয় পর্যায়ে ৩য় এবং জাতীয় পর্যায়ে ৪র্থ অবস্থানে রয়েছে,

নাটোর বিভাগীয় পর্যায়ে ৪র্থ এবং জাতীয় পর্যায়ে ৫ম অবস্থানে রয়েছে, সিরাজগঞ্জ বিভাগীয় পর্যায়ে ৫ম এবং জাতীয় পর্যায়ে ৭ম অবস্থানে রয়েছে, রাজশাহী জেলা- বিভাগীয় পর্যায়ে ৬ষ্ঠ এবং জাতীয় পর্যায়ে ৮ম অবস্থানে রয়েছে, জয়পুরহাট বিভাগীয় পর্যায়ে ৭ম এবং জাতীয় পর্যায়ে ৫ম অবস্থানে রয়েছে, বগুড়া বিভাগীয় পর্যায়ে ৯ম এবং জাতীয় পর্যায়ে ২৩ তম অবস্থানে রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ