জাতীয় সামার অ্যাথলেটিকসে রাবির দুই শিক্ষার্থীর বাজিমাত

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২, ১১:১৭ অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক:


সুলতানা কামাল-আলিলা গ্রুপ ১৬তম জাতীয় সামার অ্যাথলেটিকসে স্বর্ণপদক জয় করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সাবেক শিক্ষার্থী শিরিন আক্তার ও মাহফুজ হাসান। শিরিন ১৩বারের মতো ১০০ মিটার স্প্রিন্টে এবং সপ্তমবারের মতো মাহফুজ হাসান হ্যামার থ্রোতে এই গৌরব অর্জন করেছেন।

১০০ মিটার স্প্রিন্টে নারী এককে শিরিন আক্তার সময় নিয়েছে ১১.৯৫ সেকেন্ড। ইলেকট্রনিক বোর্ডে এটি মেয়েদের ১০০ মিটারে নতুন জাতীয় রেকর্ড। আগের রেকর্ডও ছিল শিরিনের। ২০১৬ সালে গুয়াহাটি এসএ গেমসে করেন ১১.৯৯। জাতীয় এ্যাথলেটিকস ও জাতীয় সামার এ্যাথলেটিকস মিলে টানা ১৩বার দ্রুততম মানবীর খেতাব পেলেন তিনি।

শুধু তাই নয় এই অর্জনের মাধ্যমে বিকেএসপির সুমাইয়া দেওয়ানকে হারিয়ে দ্রুততম মানবীর মুকুট পুনরুদ্ধার করেছেন শিরিন। গত জানুয়ারিতে নারী বিভাগে দ্রুততম মানবী হয়েছিলো সুমাইয়া। দুজনের আবারো দেখা হলে শেষ হাসি হেসেছেন শিরিন। দেশের দ্রুততম মানবীর খেতাব ধরে রাখার পর শ্রেষ্ঠত্ব নিজের কব্জায় রেখেছেন ২০০ মিটার স্প্রিন্টেও। সেখানেও জিতেছেন স্বর্ণপদক।

অন্যদিকে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার লড়াইয়ে হ্যামার থ্রোতে স্বর্ণপদক জিতেছেন মাহফুজ হাসান। ৫৩ দশমিক ৩৫ মিটারে থ্রো করে সবাইকে পেছনে ফেলে সপ্তম বারের মতো স্বর্ণপদক জিতেছেন তিনি। এর আগে বঙ্গবন্ধু ৪৪তম জাতীয় এ্যাথলেটিকসে ৫০ দশমিক ৮১ মিটারে থ্রো করে গোল্ড জিতেছিলেন মাহফুজ।

শিরিন আক্তার ও মাহফুজ হাসান দুজনেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী। উভয়ই বাংলাদেশ নৌবাহিনীর হয়ে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন।

অনুভূতি জানতে চাইলে শিরিন আক্তার বলেন, নিজের জায়গা ফিরে পেতে গত কয়েক মাস কঠোর পরিশ্রম করেছি। পরিশ্রম করলে কোনো কিছুই বৃথা যায় না। নিজের শ্রেষ্ঠত্ব ফিরে পাওয়ার এই অনুভূতি বলে বুঝানো যাবে না। আমার কোচ আব্দুল্লাহ হিল কাফি স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞা। বর্তমানে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করছি, সেখানে থেকেই প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। বেশকিছু দিন ইনজুরিতে ছিলাম। এই সময়ে যারা আমার পাশে দাঁড়িয়ে সাহস জুগিয়েছে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

মাহফুজ হাসান বলেন, অনুভূতি আসলে বলে বুঝানো সম্ভব নয়। এর আগে টানা ষষ্ঠবার গোল্ড জিতেছি, ফলে পদক ধরে রাখার জন্য আমার জন্য এটা চ্যালেঞ্জিং ছিলো। ঢাকায় বেশিদিন প্রাকটিস করার সুযোগ পাইনি। তারপরও বেস্ট থ্রো করতে পারছি। কৃতজ্ঞতা বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রতি আমাকে সুযোগ করে দেয়ার জন্য। ভবিষ্যতে আরো ভালো করতে চাই। সেই সঙ্গে বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি আমার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কোচ প্রার্থ প্রতীম মল্লিক স্যারের প্রতি। যার হাত ধরে আমার আজকের এই অবস্থানে আসা।

তাদের এমন সফলতায় অভিনন্দন জানিয়েছেন ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। তিনি বলেন, বিভাগের শিক্ষার্থীদের ভালো অর্জন আমাদের বরাবরই আনন্দিত করে। শিক্ষার্থীদের এমন অর্জন বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনামকে বৃদ্ধি করে। তাদের এই অর্জন আগামী দিনে অন্যান্য শিক্ষার্থীদের অনুপ্রেরণা জোগাবে। তাদের উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করছি।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ সেপ্টেম্বর ঢাকার বনানী আর্মি স্টেডিয়ামে সুলতানা কামাল-আলিলা গ্রুপ ১৬তম জাতীয় সামার অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। দুই দিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতায় দেশের ৮টি বিভাগের ৬৪টি জেলার ৪৫০জন (পুরুষ ও মহিলা) এ্যাথলেট ও ১৫০ জন কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করে। এবারের প্রতিযোগিতা মোট ৪০টি ইভেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে পুরুষ ২২টি এবং মহিলাদের ১৮টি ইভেন্ট।