জামায়াত থেকে নব্য জেএমবিতে জঙ্গি সাজ্জাদ

আপডেট: মে ১৩, ২০১৭, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীর গোদাগাড়ীর বেনীপুরে জঙ্গি আস্তানায় বৃহস্পতিবার পুলিশের অভিযানের মধ্যে ‘আত্মঘাতী বিস্ফোরণ’ ঘটিয়ে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এই পাঁচজনের মধ্যে চারজনই একই পরিবারের সদস্য। পরিবারের কর্তা সাজ্জাদ আলী জামায়াতের রাজনীতি থেকে নব্য জেএমবির কর্মকাণ্ডে যুক্ত হন বলে পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়।
পুলিশ জানায়, ফসলের মাঠের মধ্যে মাটি আর টিন দিয়ে তৈরি বাড়িটির মালিক সাজ্জাদ আলী। স্ত্রীর সূত্রে তিনি শ্বশুরবাড়ি থেকে পাওয়া জমিতে মাস দেড়েক আগে বাড়িটি বানান। স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে তিনি এখানেই থাকতেন।
গোদাগাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি বলেন, জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বুধবার দিবাগত রাত একটার দিকে মাঠের মধ্যে থাকা বাড়িটি ঘিরে ফেলে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে ওই বাড়ির ভেতর থেকে কয়েকজন বের হয়ে এসে ‘আত্মঘাতী বিস্ফোরণ’ ঘটান।
তিনি বলেন, সাজ্জাদের মেয়ে সুমাইয়ার স্বামী জহুরুল ইসলাম নব্য জেএমবির সদস্য। ছয় মাস আগে নাশকতার মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। তবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে তেমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। বর্তমানে তিনি গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে আছেন। জহুরুলের শ্বশুর সাজ্জাদ একসময় জামায়াতে ইসলামীর রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। পরে জামাইয়ের উৎসাহে তিনি নব্য জেএমবির কর্মকাণ্ডে যুক্ত হন। সাজ্জাদ ও তার ছেলে আল আমিন ফেরি করে কাপড় বিক্রি করতেন। সাজ্জাদের নামে থানায় কোনো মামলা নেই। এই পরিবারটি যে এমন কাণ্ড ঘটাবে, সে বিষয়ে পুলিশ কোনো ধারণাই করতে পারেনি।
স্থানীয় কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেও একই ধরনের তথ্য পাওয়া গেছে। তারা বলেন, বছর দু-এক আগে থেকে সাজ্জাদের চলাফেরা সন্দেহজনক হয়ে ওঠে। বাড়িতে অপরিচিত লোকের আনাগোনা বেড়ে যায়। পরে একই গ্রামের মাঠে নতুন করে বাড়ি বানিয়ে চলে যায় সাজ্জাদের পরিবার।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ