জালিয়াতির মামলায় নিউ ইয়র্কে ৭ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

আপডেট: মার্চ ১২, ২০১৭, ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



প্রবাসীদের গোপন তথ্য চুরি করে ক্রেডিট কার্ড জালিয়াতির মাধ্যমে ৩০ লাখ ডলার হাতিয়ে নেওয়ার মামলায় ৭ বাংলাদেশিসহ ৩০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে নিউ ইয়র্ক পুলিশ।
গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে কয়েক ডজন জাল ক্রেডিট কার্ডসহ পরিচয়পত্র তৈরির ৪টি মেশিন, নগদ ৪ লাখ ডলার, স্বর্ণের বার, চুরির টাকায় কেনা ৫টি গাড়ি ও ৩টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে কুইন্সের ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি রিচার্ড এ ব্রাউন জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে সংঘবদ্ধ অপরাধ চক্রের এ সদস্যরা কুইন্সসহ আশপাশের এলাকায় প্রতারণা চালিয়ে আসছিল।
“তারা সিটি ব্যাংক, ব্যাংক অব আমেরিকা, চেজ, আমেরিকান এক্সপ্রেসের কার্ড জালিয়াতি করে বিভিন্ন দোকান থেকে স্বর্ণালংকার, ইলেক্ট্রনিক্সসহ নানান ধরনের পণ্য কিনে পরে অন্যখানে স্বল্পদামে বিক্রি করে টাকা হাতিয়ে নিত।”
গ্রেপ্তার ৭ বাংলাদেশির মধ্যে জালিয়াত চক্রের দলনেতা মোহাম্মদ রানার (৪০) বাসা জ্যামাইকার ৯৩ নম্বর অ্যাভিনিউতে।
বাকিরা হলেন- জ্যামাইকার ১৭০ নম্বর স্ট্রিটে বসবাস করে আসা বিল্লাহ, লেফার্টস বুলেভার্ডের তানভির সিধু ওরফে সানী (২৫), ১২৬ নম্বর স্ট্রিটের মহসিন খান ওরফে চাচা (৫৯), করোনার সোলটেল এভিনিউর সেলিনা ওরফে পচো, ভ্যালিস্ট্রিমের সালিম রোডের মোহাম্মদ ইকবাল (৩০), কুইন্সের ব্রায়ারউডের কলেজ অ্যাভিনিউর মোহাম্মদ হাসান (৫২) এবং কণ্ঠশিল্পী শম্পা জামান (৪৬)।
শম্পা জ্যামাইকার ১৮০ নম্বর স্ট্রিটের বাসিন্দা।
সংবাদ সম্মেলনে নিউ ইয়র্কের পুলিশ কমিশনার জেমস পি ও’ নীল জানান, বাংলাদেশি ছাড়া চক্রের বাকি সদস্যরা ভারত ও পাকিস্তানের নাগরিক। সহ দলনেতা ইন্দারজিৎ সিং ওরফে গয়া এবং সনুকেও (২৪) গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
অভিযোগ প্রমাণিত হলে এদের সবার সর্বোচ্চ ২৫ বছর কারাদণ্ডসহ মোটা অংকের আর্থিক জরিমানা হতে পারে বলে ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি ব্রাউন জানিয়েছেন।- বিডিনিউজ