জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে সাংবাদিক ইমরান

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৭, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন সাংবাদিক ইমরান হোসাইন (৩৫)। ছোট ভাইয়ের হাতুড়ির আঘাতে এখন তিনি মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। রাজশাহীর তানোরের কর্মরত সাংবাদিক ইমরান হোসাইনকে নগরীর বেসরকারি সিডিএম হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে।
সাংবাদিক ইমরান হোসাইন দৈনিক সোনার দেশ’র তানোর পৌর প্রতিনিধি। এছাড়া তিনি দৈনিক যুগান্তরের তানোর উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন। উপজেলার জিওল গ্রামে তার বাড়ি। ইমরান হোসাইনের বাবার নাম ইয়াকুব আলী। শনিবার রাতে মাথায় আঘাত পাওয়ার পর জ্ঞান হারান তিনি। গতকাল রোববার রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত তার জ্ঞান ফেরেনি।
তানোরের সংবাদকর্মীরা জানান, ইমরান হোসাইনের ছোট ভাই মওদুদ আহমেদ মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন। নিজের চিকিৎসা করাতে চান না মওদুদ। এ জন্য ইমরান তাকে বকাবকি করেছিলেন। এতেই বড় ভাই ইমরানের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন মওদুদ। শনিবার রাত ৮টার দিকে ইমরান বাড়ির সামনের বাজারে বসেছিলেন। এ সময় আকস্মিকভাবে হাতুড়ি দিয়ে ইমরানের মাথায় পিছন থেকে আঘাত করেন ছোট ভাই মওদুদ।
এ ঘটনার পর পরই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন ইমরান। পরে পরিবারের লোকজন তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ ও মাথার মগজ বের হয়ে যাওয়া দেখে সেখানকার চিকিৎসকরা ইমরানকে দ্রুত ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেন। তবে সড়কের দুরাবস্থার কথা চিন্তা করে পরিবারের সদস্যরা নগরীর লক্ষ্মীপুরে বেসরকারি সিডিএম হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। গতকাল সকালে প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে ইমরানের মাথায় অস্ত্রোপচার করা হয়।
সিডিএম হাসপাতালের চিকিৎসক মোমতাজুল হক এই অস্ত্রোপচার করেন। তিনি বলেন, ইমরানের অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। তার বাঁচার আশা ক্ষীণ, তবে তারা সাধ্যমত চেষ্টা করে যাচ্ছেন। রাতে আঘাত পাওয়ার পরই ইমরান জ্ঞান হারান। অস্ত্রোপচারের পরও তার জ্ঞান ফেরেনি। তাই অস্ত্রোপচারের পর তাকে আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। তারা ২৪ ঘণ্টা অপেক্ষা করছেন।
এদিকে ঘটনার পর গতকাল দুপুরে সিডিএম হাসপাতালে সাংবাদিক ইমরানকে দেখতে যান দৈনিক সোনার দেশ’র ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত, যুগান্তরের সিনিয়র রিপোর্টার আনু মোস্তফাসহ গণমাধ্যমকর্মীরা। এছাড়া শনিবার দিবাগত গভীর রাতে ইমরান আহত হবার খবর পেয়েইে হাসপাতালে ছুটে যান রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের (আরইউজে) নেতারা। আরইউজের সভাপতি কাজী শাহেদ, সাধারণ সম্পাদক মামুন-অর-রশিদ ও সিনিয়র সাংবাদিক তানজিমুল হক গিয়ে ইমরানের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন। তারা চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে সর্বাত্মক চিকিৎসাসেবা দেয়ার অনুরোধ জানান।
সিডিএম হাসপাতালে তানোর প্রেসক্লাবের আহবায়ক টিপু সুলতান ও সাবেক সভাপতি সাঈদ সাজুসহ অন্যান্য সাংবাদিকরা অবস্থান করছেন। তারা ইমরানের জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। ইমরানের পরিবারের সদস্যরাও সবার কাছে দোয়াপ্রার্থী।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ