জুনে সাগরদাঁড়িতে মধু কবিকে নিয়ে অনুষ্ঠান-আয়োজন

আপডেট: জানুয়ারি ২৬, ২০২৪, ৫:০৮ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :১৮২৪ সালের ২৫ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত। তাঁর জীবন যাপনের ধারা যেমন ২০০ বছর পরেও সমান আলোচিত, তেমন সাহিত্যে তিনি যে বিপ্লব ঘটিয়েছিলেন, তা সমান প্রাসঙ্গিক। মধুসূদনের দ্বিশতবর্ষ জন্মজয়ন্তীতে দীর্ঘ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে বঙ্গীয় সাহিত্য সংস্কৃতি সংসদ। বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে সার্কুলার রোডে তাঁর সমাধিস্থলে শ্রদ্ধা জানান হয়।

বিকেলে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় বৌদ্ধ ধর্মাঙ্কুর সভায়। উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গীয় সাহিত্য সংস্কৃতি সংসদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম, বঙ্গীয় সাহিত্য সংস্কৃতি সংসদ, পশ্চিমবঙ্গ শাখার সহ সভাপতি ড. মহুয়া মুখার্জি, সাধারণ সম্পাদক শম্পা বটব্যাল সহ বিশিষ্ট জনেরা। বাংলা ভাষার প্রচার এবং প্রসার, বিশ্বব্যাপী বাংলা ভাষাভাষী মানুষের মধ্যে ভাষার বীজ আরও গভীরভাবে বপন করা, বাংলার কৃষ্টি- সংস্কৃতিকে, ভাষাকে শুদ্ধভাবে প্রচার করাই লক্ষ্য বঙ্গীয় সাহিত্য সংস্কৃতি সংসদের।

মাইকেল মধুসূদনের দ্বিশতবর্ষে ভারত এবং বাংলাদেশে একগুচ্ছ কর্মসূচি, অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে তারা। ২৫ জানুয়ারি থেকে অনুষ্ঠানের সূচনা হল। খিদিরপুর, হিন্দু কলেজ, বিশপ কলেজ সহ পশ্চিমবঙ্গের যেখানে যেখানে মধুসূদন ছিলেন, পড়াশোনা করেছেন, তাঁর স্মৃতি বিজড়িত সেসব জায়গায় নানা সময়ে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। বাংলাদেশে যেসমস্ত অঞ্চলে তাঁর স্মৃতি জড়িয়ে, সেসব জায়গাগুলি বাংলাদেশ সরকারের সহযোগিতায় পুনরুদ্ধার এবং সংস্কারের চেষ্টা চালাচ্ছে বঙ্গীয় সাহিত্য সংস্কৃতি সংসদ ।

২৯ জুন, মধুসূদনের প্রয়াণ দিবসে, সাগরদাঁড়িতে অনুষ্ঠান করে সমাপ্ত হবে দ্বিশতবর্ষের অনুষ্ঠান। বৃহস্পতিবারের আলোচনা সভায় উপস্থিত বিশিষ্ট জনেরা আলোচনা করেন মধুসূদনের সাহিত্য, কর্ম, ব্যাপ্তি, বিস্ময়কর, বিচিত্র জীবন যাপন, পরবর্তী সাহিত্যে তাঁর লেখার প্রভাব এবং বর্তমানেও তিনি, তাঁর লেখা কতটা অপরিহার্য তা নিয়ে। বক্তাদের কথায় উঠে আসে সনেট, অমিত্রাক্ষর ছন্দ, বিনির্মাণ তত্ব সহ একাধিক বিষয়।
তথ্যসূত্র: আজকাল অনলাইন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ