জেরুজালেমে সিনাগগে বন্দুক হামলায় নিহত ৭

আপডেট: জানুয়ারি ২৮, ২০২৩, ১২:০৯ অপরাহ্ণ

গুলিতে নিহত বেশ কয়েকজন সিনাগগটির সামনের রাস্তায় পড়ে আছেন আর জরুরি বিভাগের কর্মীরা তাদের ফয়েল পেপার দিয়ে ঢেকে দিচ্ছেন। ছবি: রয়টার্স

সোনার দেশ ডেস্ক :


পূর্ব জেরুজালেমে ইহুদীদের এক সিনাগগে বন্দুকধারীর হামলায় অন্তত সাতজন নিহত ও আরও ১০ জন আহত হয়েছেন।
পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত প্রায় সোয়া ৮টার দিকে এক বন্দুকধারী সিনাগগটিতে উপস্থিত হয়ে গুলিবর্ষণ শুরু করে, তার গুলিতে বহু সংখ্যক লোক হতাহত হওয়ার পর পুলিশ তাকে হত্যা করে।

আন্তর্জাতিক হলোকাস্ট স্মরণ দিবসের দিন সাবাথের প্রার্থনায় যোগ দেওয়ার জন্য ধর্মানুরাগীরা সিনাগগটিতে উপস্থিত হওয়ার পর হামলাটি হয়।
টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে, গুলিতে নিহত বেশ কয়েকজন সিনাগগটির সামনের রাস্তায় পড়ে আছেন আর জরুরি বিভাগের কর্মীরা তাদের ফয়েল পেপার দিয়ে ঢেকে দিচ্ছেন।

ইসরায়েলের পুলিশ এই হামলাকে ‘সন্ত্রাসী ঘটনা’ বলে বর্ণনা করেছে। তাৎক্ষণিকভাবে কোনো গোষ্ঠী এ হামলার দায় স্বীকার করেনি।
একদিন আগে বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে অন্তত নয় ফিলিস্তিনি নিহত হয়।

কয়েক বছরের মধ্যে পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর চালানো সবচেয়ে প্রাণঘাতী অভিযান ছিল এটি। এর পরদিন সিনাগগে এই হামলার ঘটনায় পশ্চিম তীরে কয়েক মাস ধরে চলা সংঘাত বড় ধরনের সহিংসতায় মোড় নেওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

গাজা ভূখণ্ড নিয়ন্ত্রণকারী ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক গোষ্ঠী হামাসের মুখপাত্র হাজেম কাসেম বলেছেন, পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযান ও সিনাগগে হামলা পরস্পর সম্পর্কিত।
“এই অভিযান জেনিনে দখলদারদের পরিচালিত অপরাধের প্রতিক্রিয়া এবং দখলদারদের অপরাধমূলক তৎপরতার একটি স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া,” বলেছেন তিনি।

ফিলিস্তিনি জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক জিহাদ এই হামলার প্রশংসা করলেও দায় স্বীকার করেনি।
ইসলায়েলি গণমাধ্যম বলেছে, হামলাকারী বন্দুকধারী পূর্ব জেরুজালের বাসিন্দা এবং তিনি একজন ফিলিস্তিনি; কিন্তু ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে তা নিশ্চিত করেনি।
ইসরায়েলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, সিনগাগে হামলায় সাতজন নিহত হয়েছেন; কিন্তু দেশটির অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা মৃতের সংখ্যা পাঁচজন বলে জানিয়েছে।

সিনাগগে হামলার খবর গাজায় ছড়িয়ে পড়ার পর রাস্তায় রাস্তায় স্বতঃস্ফূর্ত সমাবেশ ও উদযাপনমূলক গুলিবর্ষণের হিড়িক দেখা যায়।
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি বিøনকেন ইসরায়েল ও পশ্চিম তীর সফরে আসছেন।

তার সফরের আগে সিনাগগে হামলার এ ঘটনা ঘটল। এক বিবৃতিতে এ হামলার নিন্দা করেছে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
গাজা থেকে চালানো রকেট হামলার প্রতিক্রিয়ায় শুক্রবার সকালে ইসরায়েলি জঙ্গি বিমানগুলো গাজায় হামলা চালিয়েছিল। এসব হামলায় হতাহতের বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ