জেলায় সেরা আড়ানী প্রাথমিক বিদ্যালয়

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১, ২০১৭, ১:৫১ পূর্বাহ্ণ

আমানুল হক আমান,বাঘা


রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবার পিএসসি পরীক্ষায় জেলায় সেরা হয়েছে। আগামীতে বিদ্যালয়টির টার্গেট বোর্ডের সেরা স্থান অর্জন করা।
জানা যায়, আড়ানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে এবার পিএসসি পরীক্ষায় ১১৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে সকলেই কৃতকার্য হয়েছে। পাসের হার ১০০ ভাগ। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩০ জন।
বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসনুবা জামান জানায়, এই স্কুলে স্যারদের লেখাপড়া শেখানোর ধরন আলাদা। অতি সহজে বুঝতে পারছি। শিক্ষকরা যথেষ্ট আন্তরিক।
সহকারী শিক্ষক মাহমুদা খাতুন জানান, আমরা ১৩ জন শিক্ষকই আন্তরিকতার সাথে ক্লাস নিই। বাচ্চাদের সাথে আমরা বন্ধুর মতো আচরণ করি। আমাদের দেখে তারা যেন ভয় না পায়, সেদিকে সব সময় খেয়াল রাখা হয়। এছাড়া গ্রুপ ভিক্তিক ক্লাস নেয়া হয়। ২০১৫ সালে ৯৪ জন ও ২০১৪ সালে ৯৬ জন পিএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে সকলেই সফলতার সাথে উত্তীর্ণ হয়েছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নার্গিস খাতুন জানান, ভালো ফলাফল অর্জন করতে হলে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবকদেরও সন্তানদের প্রতি যত্নবানহতে হবে। শুধু জেলায় নয়, আগামীতে বোর্ডের সেরা স্থানে থাকাই আমাদের লক্ষ্য। এই বিদ্যালয়টি ১৯৯৮ সালে দেশের মধ্যে সেরা হয়েছিল। আশা করছি এই সাফল্য আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আহসান আরা জানান, এবার পিএসসি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে ১৯২২ সালের স্থাপিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আড়ানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। আগামীতেও বিদ্যালয়টির সাফল্য ধরে রাখার জন্য প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান শাহীদ জানান, বিদ্যালয়ের ফলাফল যাতে আরো ভালো হয়, সে জন্য সবধরনের সহযোগিতা করা হবে। এবারের ফলাফলে জেলার সেরা হওয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিনন্দন জানান তিনি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হামিদুল ইসলাম জানান, পিএসসিতে পাসের হারের দিকে থেকে এবার বাঘা উপজেলা অনেক ভালো করেছে। তবে জেলার মধ্যে ফলাফলে আড়ানী বিদ্যালয় প্রথম হয়েছে। বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের আন্তরিকতা ও শিক্ষার্থীর এবং অভিভাবকদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকলে আরো অনেক ভালো করা যাাবে। একটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আসল দায়িত্ব হচ্ছে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাকদের। তবে পাশাপাশি সকলদের সচেতন থাকলে উন্নতি হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ