জেলেও ‘জামাই আদর’ রাম রহিমকে, মিলছে মিনারেল ওয়াটার-সহযোগী

আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০১৭, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জেলে গিয়েও বহাল তবিয়তে গুরমিত রাম রহিম। কার্যত ভিআইপি মর্যাদা পাচ্ছেন এই স্বঘোষিত ধর্মগুরু। সবসময় মিনারেল ওয়াটারের জোগান রয়েছে। এমনকী তার সঙ্গে রয়ছে এক সহযোগীও। দোষী সাব্যস্ত করার পর অনুগামীদের তাণ্ডব নিয়ে এপর্যন্ত একটি শব্দও খরচ করেননি রাম রহিম। আইনশৃঙ্খলার অবনতি নিয়ে বিরোধীদের তোপের মুখে হরিয়ানার বিজেপি শাসিত সরকার। স্বঘোষিত ধর্মগুরুর এই ভিআইপি জেল জীবন নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।
প্রশাসন যে রাম রহিমের পাশে আছে তা অনেকটাই স্পষ্ট হরিয়ানার কারামন্ত্রীর মন্তব্যে। কারামন্ত্রী কৃষাণ লাল পানোয়ার জানিয়েছেন রোহতকের সুনারিয়া জেলের মধ্যে একটি গেস্ট হাউসে রাখা হয়েছে রাম রহিমকে। কেন গেস্ট হাউসের মতো জায়গা? তার সাফাই দিতে গিয়ে কৃষাণ লালের যুক্তি জেলে নাকি পর্যাপ্ত জায়গা নেই, তাই এই ব্যবস্থা। গেস্ট হাউসে রেখেই জামাই আদর থামেনি। সূত্রের খবর, স্বঘোষিত ধর্মগুরুর কাছে পৌঁছে গিয়েছে মিনারেল ওয়াটার। এমনকী গেস্ট হাউস মোড়রে জেলের মধ্যে এক ঘনিষ্ঠ সহযোগীও তার সঙ্গে রয়েছে। তবে হরিয়ানা সরকারের এই অপদার্থতায় তিনি যে খুশি নন তা বুঝিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ঘটনার কড়া নিন্দা করেছেন তিনি। পাঁচকুলার পরিস্থিতি নিয়ে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এবং স্বরাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কথা বলেছেন। পরিস্থিত স্বাভাবিক করতে সরকারি কর্মীদের ২৪ ঘণ্টা নিরলস কাজ করতে টুইটারে আবেদন জানিয়েছেন মোদি। এই নিয়ে নর্থ ব্লকে শনিবার সকাল ১১টায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের শীর্ষ কর্তাদের বৈঠক ডাকা হয়েছে।
শুক্রবার রাম রহিম অনুগামীদের গুন্ডাগিরির পর থমথমে হরিয়ানা এবং পাঞ্জাবের একাংশ। বন্ধ দোকানপাট। স্কুল-কলেজে ছুটি দেওয়া হয়েছে। এলাকায় চলছে সেনার ফ্ল্যাগমার্চ। অশান্তি এড়াতে ডেরা সাচার সদর দপ্তর ঘিরে রেখেছে সেনা। হরিয়ানায় ১১ জেলা এবং পাঞ্জাবের ৯টি জেলায় কারফিউ জারি হয়েছে। দুই রাজ্যের পরিস্থিতি অগ্নগর্ভ থাকায় উত্তর রেলের ৪৪৫টি ট্রেন বাতিল হয়েছে। ২৮ আগস্ট পর্যন্ত উপদ্রুত এলাকায় ট্রেন চলবে না। মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টর গাফিলতির দায় মানলেও তাঁর কোপে পড়েছেন সরকারি আধিকারিকরা। কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে পাঁচকুলার ডিএসপিকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বরখাস্ত করা হয়েছে জেলাশাসককে।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন (কলকাতা)