জ্যোতিষীদের দৃষ্টিতে : ২০১৭ সালে কেমন যাবে বাংলাদেশ

আপডেট: জানুয়ারি ১, ২০১৭, ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


২০১৬ সাল বলতে গেলে ভালোই কেটেছে। বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া বাংলাদেশ উন্নতির দিকেই অগ্রগামী হয়েছে। তবুও পক্ষে-বিপক্ষে মতামতের মধ্য দিয়েই দেশকে এগিয়ে যেতে হয়। কিন্তু কেমন যাবে আগামী বছর অর্থাৎ ২০১৭ সাল। সে চিন্তা-ভাবনা সবার মনেই। সবার মনে যখন এই চিন্তা; তখন বসে নেই জোতিষীরাও। সেসবের উত্তরও দিয়েছেন তারা। তাহলে জেনে নিন জ্যোতিষীদের দৃষ্টিতে ২০১৭ সালে কেমন যাবে বাংলাদেশ।
অর্থনীতি : অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো যাবে। কৃষিজ উৎপাদন বাড়লেও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত থাকবে। জনশক্তি রফতানি বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তৈরি পোশাক খাতেও রফতানি বাণিজ্য বাড়বে। প্রবাসীদের রেমিট্যান্স এবং পণ্য রফতানি বাড়ার ফলে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিভিন্ন বন্ধুপ্রতিম দেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি এবং বিশ্বব্যাংকসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক আর্থিক সংস্থার আশানুরূপ সহযোগিতায় দেশের প্রভূত অগ্রগতি সাধন হবে। মানুষের গড় আয় বাড়বে। খাদ্যোৎপাদন বাড়ার ফলে বিদেশ থেকে খাদ্য আমদানির পরিমাণ উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পাবে। বন্ধুপ্রতিম দেশসমূহের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়ন অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রভাব ফেলতে পারে।
রাজনীতি : দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি মোটামুটি ভালো থাকবে। বিরোধীদের ব্যাপক তৎপরতা সত্ত্বেও সরকারবিরোধী বড় ধরনের কোনো আন্দোলন গড়ে তোলা সম্ভব নাও হতে পারে। শাসক দলের অঙ্গসংগঠনসমূহের আভ্যন্তরীণ বিরোধের ফলে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে সরকার একাধিকবার বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারে। ২০১৭ সালে একাধিক চাঞ্চল্যকর রাজনৈতিক হত্যাকা- সংঘটিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। মন্ত্রিপরিষদে কোনো ধরনের রদবদলের সম্ভাবনা একেবারে নাকচ করে দেয়া যায় না। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা সম্পর্কে অধিকতর সতর্কতা অবলম্বনের প্রয়োজন রয়েছে।
উন্নয়ন : দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন কর্মকা- অব্যাহত থাকবে। উন্নয়ন খাতে বৈদেশিক সাহায্যের পরিমাণও বৃদ্ধি পাবে। কর্ণফুলী টানেল, পদ্মা সেতুসহ সরকারের বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর কাজে যথেষ্ট অগ্রগতি হবে। যমুনা রেলসেতু প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করার ক্ষেত্রে অগ্রগতির সম্ভাবনা আছে। যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে গৃহীত একাধিক প্রকল্প এ বছর সমাপ্ত হতে পারে। ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
খাদ্য : বছরের শেষদিকে ইউরেনাস অগ্নি রাশি মেষে প্রবেশ করবে। নেপচুন সারা বছরই কুম্ভে থাকবে। বছরের শেষ দিকে বৃহস্পতি বায়ু রাশির তুলায় অবস্থান করবে। মৃত্তিকা রাশিতে বৃহস্পতির অবস্থানের ফলে এ বছর খাদ্য ও অন্যান্য কৃষিজ উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। ফলে খাদ্য আমদানি হ্রাস পাবে।
বিচার প্রক্রিয়া : যুদ্ধাপরাধীদের চলমান বিচার প্রক্রিয়া এ বছরও অব্যাহত থাকবে। তবে অধিকাংশ মামলার বিচার এ বছর সম্পন্ন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
নির্বাচন : সরকারের বিরোধী পক্ষ নানাবিধ আন্দোলন-সংগ্রামের চেষ্টা করলেও ২০১৭ সালে বাংলাদেশে মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোনো সম্ভাবনা নেই। এ বছর অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সরকারি দলের বিজয়ের সম্ভাবনা আছে।
পররাষ্ট্রনীতি :  নানাবিধ প্রতিকূলতা ও ষড়যন্ত্র সত্ত্বেও পররাষ্ট্রনীতির ক্ষেত্রে উল্লেøখযোগ্য সাফল্যের সম্ভাবনা আছে। যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, চীন, রাশিয়া, ব্রিটেন, জাপান প্রভৃতি দেশের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নের যথেষ্ট সম্ভাবনা আছে। সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশসমূহের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়ন অব্যাহত থাকবে। মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া, ভিয়েতনাম, লাওস, কম্পুচিয়াসহ দূরপ্রাচ্যের দেশসমূহের সঙ্গেও সুসম্পর্ক বজায় থাকবে। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র সত্ত্বেও পররাষ্ট্রনীতির ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য অব্যাহত থাকবে। অন্যান্য প্রতিবেশী দেশের সঙ্গেও সুসম্পর্ক বজায় থাকবে। রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে প্রতিকূল পরিস্থিতি সত্ত্বেও মিয়ানমারের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকবে বলে আশা করা যায়। সরকারবিরোধীদের নানা প্রকার অপপ্রচার সত্ত্বেও বিদেশনীতির সাফল্য দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হবে। জাতিসংঘ, ওআইসি, বিশ্বব্যাংক সার্ক প্রভৃতি আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহের কার্যক্রমেও বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। বৈশ্বিক রাজনীতিতে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার ফলে এ বছর বৈদেশিক সাহায্যের পরিমাণ বৃদ্ধি পেতে পারে।
দুর্নীতি : সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্নীতি-দুষ্কর্ম বৃদ্ধি পেতে পারে। রাজনীতিবিদদের কারো কারো দুর্নীতি-দুষ্কর্মের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস হয়ে যাওয়ার ফলে সরকার বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারে।
প্রাকৃতিক অবস্থা : ঝড়, জলোচ্ছ্বাস, অতিবৃষ্টি ও অনাবৃষ্টিজনিত কারণে জনজীবন একাধিকবার সমস্যাসংকুল হয়ে উঠতে পারে। অঞ্চলবিশেষে বন্যা, শিলাবৃষ্টি, ভূমিধস, নদীভাঙন প্রভৃতি সমস্যায় জনজীবন বিপর্যস্ত হতে পারে। ছোট ও মাঝারি ধরনের একাধিক ভূমিকম্পের আশঙ্কা একেবারেই উড়িয়ে দেয়া যায় না। ইউরেনাস, নেপচুনের যথাক্রমে বায়ু রাশি ও জলজ রাশিতে অবস্থানের ফলে প্রভৃতি সারা বছরই অপ্রত্যাশিত রহস্যজনক কিছু কিছু আচরণ করবে। জল, স্থল ও অন্তরীক্ষে দুর্ঘটনার পরিমাণ এ বছর তুলনামূলকভাবে বৃদ্ধি পেতে পারে।
আইনশৃঙ্খলা : এ বছর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটতে পারে। জঙ্গি তৎপরতা, রাজনৈতিক সহিংসতা, সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র, শাসক দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দল, ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ সরকারি দলের সংগঠনসমূহের দুর্নীতিপরায়ণ কর্মীদের সন্ত্রাসী তৎপরতার জন্য খুন, জখম প্রভৃতি সহিংস কর্মকা- বৃদ্ধি পাবে। হত্যা, গুম, খুন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ক্রস ফায়ার প্রভৃতির সংখ্যাধিক্যের ফলে সাধারণ মানুষের ভিতরে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হতে পারে। চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, রাহাজানি প্রভৃতি অপরাধও তুলনামূলকভাবে বৃদ্ধি পেতে পারে। সরকারের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরাও ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী কর্মকা-ে লিপ্ত হতে পারে। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীও সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য ষড়যন্ত্রমূলক তৎপরতায় লিপ্ত হতে পারে। জঙ্গিবাদী তৎপরতা সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পর্কে সরকারের সংশ্লিøষ্ট এজেন্সিসমূহকে বছরের প্রথম থেকেই সতর্ক থাকতে হবে।
দুর্ঘটনা : সড়ক দুর্ঘটনাসহ অন্যান্য দুর্ঘটনার পরিমাণও আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেতে পারে। ফলে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।-জাগোনিউজ