জয়পুরহাটে চাঁদাবাজি ও হামলার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট: জুলাই ১৩, ২০২০, ১:৪৬ অপরাহ্ণ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি :


জয়পুরহাট সদর উপজেলার রাজনগর গুচ্ছ গ্রামের এক দল সন্ত্রাসী চাঁদা না পেয়ে ক্রমাগত হামলা ও হুমকি দিয়ে গেলেও প্রতিকার পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাজ নগর গ্রামের ময়েন উদ্দিনের ছেলে তরুণ মাছচাষি রায়হান কবীর সোমবার (১৩ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টায় জয়পুরহাট জেলা প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন- একই গ্রামের বিদ্যুত আলম, মাহবুব আলম, ভগ্নিপতি পাশর্^বর্তী খাসপাহনন্দা গ্রামের দেলোয়ার হোসেন, জয়পুরহাট শহরের আরাম নগর এলাকার মিল্টন হোসেন স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
রাযহান কবীর তার লিখিত অভিযোগে জানান, তিনি তার গ্রামের নিজস্ব পুকুরে মাছ চাষ করেন। রাজনগর গ্রামের গুচ্ছ গ্রাম এলাকার মৃত শরীফ উদ্দিনের ছেলে ওসমান আলী, একই এলাকার আ. রহমানের ছেলে মাছুদ রানা, মৃত ছইমদ্দিনের ছেলে উজ্জল হোসেন, জিল্লুর রহমানের ছেলে আনোয়ার হোসেন, জিল্লুর রহমানের ছেলে নুরু ইসলামসহ অজ্ঞাত আরোও বেশ কয়েকজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী তার কাছে বিভিন্ন সময় চাঁদা দাবি করেন। রায়হান কবীর আরো জানান, চাঁদা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে ওই সন্ত্রাসীরা বার বার তাকে প্রাণ নাশের হুমকি দিতে থাকেন। বাধ্য হয়ে তিনি জয়পুরহাট ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন (যার নম্বর- ৯৩/পি/২০১৯)। এই মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য তারা ২০১৯ সালের ২০ডিসেম্বর তাকে অপহরণ করে, প্রতিবেশীরা ঘটনাটি দেখতে পেয়ে পুলিশের ৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ ব্যপারে থানায় উল্লিখিত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা করা হলে তা একই সালের ২৯ ডিসেম্বর মামলাটি থানায় নথিুূক্ত করা হয়। ওই মামলাগুলো তুলে নেয়াসহ উল্লিখিত আসামীরা তার কাছে আবারো ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করলেও তা দিতে অস্বীকার করায় পুকুরে মাছের পোনা ছাড়ার সময় এ বছর গত ৮ জুন তারা হামলা করে তাকে, তার স্ত্রী ও বোনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুঁচিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। গ্রামবাসীরা এগিয়ে তাদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে জয়পুরহাট সদর থানায় গত ৯ জুন মামলা করেন।
উল্লেখ্য, চাঁদাবাজদের দলনেতা ওসমানের বিরুদ্ধে স্থানীয় একজন মুক্তিযোদ্ধার মেয়েকে অপহরণ (মামলা নং-জিআর-৩৭৭/ ২০০১/জয়), নিজ বাড়িতে ৩০০ পিস ফেন্সিডিলসহ র‌্যাবের হাতে আটক (মামলা নং-জিআর-৪০৫/১১/জয়) সংক্রান্ত মামলাসহ ওসমান ও তার দলবলের বিরুদ্ধে মাদক, চাঁদাবাজি, অপহরণসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী মামলা (মামলা নং-১১৫/১২, ষ্পেশাল ট্রাইবুনাল-২, তাং-২৮/০৫/২০১২ ও ১৩পি/২০২০/জয়,তাং-২০/০১/২০২০) চলমান রয়েছে। রায়হান কবীর বলেন, ‘অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এতোগুলো মামলা হলেও পুলিশ নিষ্কিয় থাকায় তারা ধরা পরেনি বলে আরো বেপরোয়া হয়ে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। আমি জীবনের নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি বলে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’ এ ব্যাপারে প্রধান অভিযুক্ত ওসমান বলেন,‘আমাদের উপর মিথ্যা মামলা মামলা চাপানো হয়েছে।’ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহরিয়ার খান জানান, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যে মামলাগুলো হয়েছে তার মধ্যে বেশ কয়েকটা মামলায় জামিনে মুক্ত রয়েছেন। তারপরও সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ