জয়পুরহাটে প্রাণ নাশের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় কয়েকটি পরিবার জমি বিরোধের সংঘর্ষে আহত ৬ জন

আপডেট: জুলাই ১৪, ২০২০, ২:৪২ অপরাহ্ণ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি :


জয়পুরহাটে জমি বিরোধের জেরে সংঘর্ষে আহত হয়েছে ৬ জন। প্রাণনাশের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় কয়েকটি পরিবার। উভয়পক্ষে সদর থানায় মামলা ও পাল্টা মামলা দায়ের হয়েছে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, দীর্ঘদিনের জমি-জমা নিয়ে শরিকানদের মধ্যে বিবাদ থাকায় ৯ জুলাই বিকাল ৪.৩০ টায় সদর উপজেলার দোগাছী ইউনিয়নের পেঁচুলিয়া পূর্বপাড়ায় অবসরপ্রাপ্ত প্রকৌশলী মো. তোফায়েল আহম্মেদের ডায়েরি ও পোল্ট্রি শেডে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র সজ্জিত অবস্থায় উভয় পক্ষের মাঝে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে অবসরপ্রাপ্ত প্রকৌশলী মো. তোফায়েল আহম্মেদ, মো. তোবারক হোসেন, তফিজ উদ্দীন আকন্দ, সাবেক দোগাছী ইউপি সদস্য গাজিউল হক স্বপন, ফারমান আলীসহ কয়েক জন আহত হয়। আহতদের জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে জয়পুরহাট সদর থানায় মামলা ও পাল্টা মামলা রুজু হয়। এ ব্যাপারে আহত তফিজ উদ্দীন জানায়, তাদের দাদার ও পৈতৃক সূত্রে পাওয়া ওয়ারিশান সম্পত্তি জোর পূর্বক দখলের চেষ্টায় বাধা দিলে তাদের উপর বিপক্ষ শরিকানগণ হামলা চালিয়ে এ ঘটনা ঘটায় এবং তাদের উপর প্রাণনাশের হুমকি দিলে তারা এখন জয়পুরহাট শহরের মুসলিম নগরে বসবাস করছে। তারা নিজ গ্রামের বাড়িতে থাকতে পারছে না। জমি বিরোধ নিয়ে তিনি ফৌজদারি ও সিভিল মামলা দায়ের করেছেন, যা চলমান রয়েছে। তাছাড়াও এ ঘটনায় গুরতর আহত তার অবসরপ্রাপ্ত প্রকৌশলী ছেলে তোফায়েলের অবস্থা আশংকাজনক। অন্যদিকে সাবেক ইউপি সদস্য গাজিউল হক স্বপন জানান, দুর্ধর্ষ প্রকৃতির তফিজ উদ্দীন আকন্দ গং বিনা উস্কানিতে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র সজ্জিত অবস্থায় তাদের উপর হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকজনকে গুরুতর জখম করে। স্বপন নিজে ও ফরমান গুরুতর আহত অবস্থায় জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি হয়। ফরমানের অবস্থা আশংকাজনক হলে তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তারা সম্প্রতি সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরেছেন। তারাও প্রাণ নাশের আশংকায় নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। মামলা ও পাল্টা মামলার তদন্তকারী এসআই (অপারেশন) শাহ-আলম জানান, মামলাটি তদন্ত পর্যায়ে রয়েছে। তদন্ত শেষে তিনি প্রকৃত অপরাধীদের ক্ষেত্রে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ