জয়পুরহাটে শিক্ষক লাঞ্ছিতের ঘটনায় প্রতিবাদ সমাবেশ

আপডেট: এপ্রিল ১৪, ২০১৭, ১:০২ পূর্বাহ্ণ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি


জয়পুরহাট সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে ডেপুটেশনে কর্মরত একজন অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর একজন শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে শিক্ষকরা। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়ের সামনে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
শিক্ষক নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে কার্যালয়টিতে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও উৎকোচ বাণিজ্যে শিক্ষক হয়রানির অভিযোগ তোলেন। তারা সাত দিনের মধ্যে এসকল বিষয়ের প্রতিকার না পেলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন।
সদর উপজেলার ভাদসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোছা. মুক্তা ইয়াসমিন এ ব্যাপারে সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমানকে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগে তিনি জানান, বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় তার স্কুলের আরো দুই জন সহকারী শিক্ষকসহ তার শিক্ষাভাতার জন্য গত জানুয়ারি মাসে দেয়া আবেদনের বিষয়ে ডেপুটেশনে কর্মরত অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর আ. হাকিমের কাছে বিষয়টি জানতে চান। এর কোন সদুত্তর না দিয়ে অফিস সহকারী মো. আবদুল হাকিম তার সঙ্গে বাকবিত-ায় লিপ্ত হন। তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং দুই সহকারী শিক্ষককে কর্মকর্তার সামনে অফিস থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। অন্যথায় জোরপূর্বক তাকে অফিস থেকে বের করে দিবেন বলে হুমকি দেন।
এ ঘটনার প্রতিবাদে সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি একই দিন বিকালে প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয় সামনে সমিতির সভাপতি মো. হাবিবুল ইসলামের সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন সমিতির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মো. আনোয়ারুল ইসলাম মাসুদ, দফতর সম্পাদক মাসুদুর রহমান, অর্থসম্পাদক রুস্তম আলী, অশোভন আচরনে লাঞ্ছিত শিক্ষক মুক্তা ইয়াসমিন, উৎকোচ বাণিজ্যের শিকার নেঙ্গাপীর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবু জাফর সিদ্দিক, সহকারী শিক্ষক শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
এ বিষয়ে সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি তাৎক্ষণিক কোন মন্তব্য করবেন না বলে জানান।