টি-টোয়েন্টিতেও মিরাজের অভিষেক

আপডেট: এপ্রিল ৭, ২০১৭, ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



টেস্ট সিরিজ শেষে দেশে ফিরে গিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্তে ওয়ানডে দলে যোগ দিতে ফিরে আসেন শ্রীলঙ্কায়। তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ভালো খেলে আস্থার প্রতিদান দিতে ভুল করেননি। প্রত্যাশিতভাবেই গতকাল টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হলো এই তরুণ অলরাউন্ডারের।
প্রথম টি-টোয়েন্টির আগে অনুশীলনে ডান হাঁটুতে বল লাগায় তাকে নিয়ে ঝুঁকি নেয় নি বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে তাসকিন আহমেদের জায়গায় একাদশে এসেছেন মিরাজ। সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ক্রিকেটে তিনিই বাংলাদেশ দলের কনিষ্ঠতম সদস্য। টেস্ট অভিষেকের ছয় মাসের মধ্যে সীমিত ওভারের দুই সংস্করণে অভিষেক হলো মিরাজের। গত বছরের অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাদা পোশাকে অভিষেক হয়েছিল তার। অভিষেক সিরিজে অফব্রেকে ১৯ উইকেট নিয়ে হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন তিনি। গত ৬ মাসে ৭টি টেস্ট খেলে তুলে নিয়েছেন ৫১টি উইকেট।
টেস্টের মতো ওয়ানডেতেও ভালো পারফরম্যান্স মিরাজের। শ্রীলঙ্কা সফরে তিন ম্যাচে চার উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি শেষ ওয়ানডেতে খেলেছেন ৫১ রানের মূল্যবান ইনিংস। টেস্ট ও ওয়ানডেতে আলো ছড়ানোর পর টি-টোয়েন্টিতে মিরাজ কী করেন, তা দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশ।
তার ক্রিকেটে আসার গল্পটা মোটেও সুখকর নয়। খেলার জন্য বাবার পিটুনি-বকুনি কিছুই বাদ যায়নি। মিরাজের বাবা কখনোই চাননি ছেলে ক্রিকেট খেলুক। খেলতে গিয়ে অনেকবার ধরা পড়ে প্রচ- মার খেয়েছেন, তবু ক্রিকেট চালিয়ে গেছেন।
অনূর্ধ্ব-১৪ জেলা দলে সুযোগ পাওয়ার পর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি মিরাজকে। অনূর্ধ্ব-১৫, অনূর্ধ্ব-১৭, অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলে এখন তিনি জাতীয় দলে। অফস্পিনের পাশাপাশি লোয়ার মিডল-অর্ডার ব্যাটিংয়ে দলের বড় ভরসা।-বাংলা ট্রিবিউন