টেস্টের সংখ্যা কমাতে চায় আইসিসি

আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০১৬, ১১:১০ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক
টেস্ট ক্রিকেট দেখতে কেমন লাগে আপনার? ভালো লাগলে একটা দুঃসংবাদ আছে, আর খারাপ লাগলে সুসংবাদ। ভবিষ্যতে কমে যেতে পারে টেস্টের সংখ্যা। অন্তত বছরে ১০টি করে টেস্ট ম্যাচের সংখ্যা কমিয়ে আনার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে আইসিসি।
সংখ্যা নয়, আইসিসি বরং প্রতিটি টেস্টের মান বাড়ানোর দিকে ঝুঁকছে। যদিও এখানে ব্যবসায়িক দিকটির প্রভাবও কাজ করার কথা। তবে এর পাশাপাশি টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি-প্রতিটি সংস্করণেই সবগুলো দলই যেন প্রায় সমান খেলার সুযোগ পায়, সেটিও নিশ্চিত করতে চাইছে আইসিসি।
আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসনই জানিয়েছেন এসব পরিকল্পনার কথা। অ্যাডিলেডে অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে চলতে থাকা দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচে এসে রিচার্ডসন বলেছেন, ‘আমরা নিশ্চিত করতে চাই যেন টেস্ট ক্রিকেটটা অতিরিক্ত না হয়ে যায়। কিছু কিছু দেশের ক্ষেত্রে এটা আর্থিকভাবেও খুব একটা লাভজনক নয়। সেটি মাথায় রেখেই, আমরা খুব বেশি অপ্রয়োজনীয় টেস্ট ক্রিকেট চাপিয়ে দিতে চাই না। আমরা যা চাইছি, তাতে বছরে গড়ে ৪৫-৫০টি টেস্ট হবে।’
সংখ্যার চেয়েও বরং ক্রিকেটের মানের ওপর গুরুত্বটা বাড়াতে চাইছে আইসিসি। রিচার্ডসনের কথায়, ‘বছরে ৭০টির মতো টেস্ট খেলতে হয়-হঠাৎ করে এমন কোনো কাঠামো আমরা বানাতে চাই না। সংখ্যাটাকে ৩৫-৪০ এর মধ্যেই রাখতে চাই আমরা। কারণ ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিকেও এই প্রোগ্রামের মধ্যে আনতে হবে। সমস্যাটা হচ্ছে, আমরা এখন খুব বেশি ক্রিকেট খেলছি। যা চাইছি, তা হলো, ক্রিকেট খেলবে কম, তবে সেটির মান হবে উন্নত, প্রতিদ্বন্দ্বিতাও থাকবে বেশি।’
এখনও কিছুই অবশ্য চূড়ান্ত হয়। আইসিসি পরিকল্পনাটা নিয়ে কাজ করছে। তবে রিচার্ডসন আশাবাদী, কারণ, প্রায় সবগুলো সদস্য দেশই এই ব্যাপারে একমত, ম্যাচের সংখ্যা কমাতে হবে। আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরও নিশ্চিত, পরিকল্পনা তৈরি হয়ে যাওয়ার পর, আগামী বছরের জুনে লন্ডনে আইসিসির বার্ষিক সভায় সেটি পাশও হয়ে যাবে। ক্রিকইনফো,প্রথম আলো অনলাইন