ট্রাম্পকে নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা || পৃথিবীর শান্তি ও স্থিতিশীলতা চরম ঝুঁকিতে?

আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০১৭, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে যতটা বিপজ্জনক ধারণা করা হয়েছিল ক্ষমতায় আরোহণের এক সপ্তহের মধ্যেই তিনি যে তার চেয়েও বেশি ‘ভয়ঙ্কর বিপজ্জনক’Ñ তার আভাস দিয়েছেন। ইতোমধ্যেই তার কর্মকা-ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রতো বটেই সারা বিশ্ব জুড়েই উদ্বেগের জন্ম দিয়েছে। নানা বিতর্কের সাথে ট্রাম্প ইতোমধ্যেই নিজেকে জড়িয়ে ফেলেছেন। তার উন্মত্ত কর্মকা-ে ইতোমধ্যেই আশঙ্কা ব্যক্ত হতে শুরু করেছে যে, বিশ্বযুদ্ধ কি আসন্ন!
আমেরিকা বহু জাতিগোষ্ঠির সমন্বয়ে গঠিত একটি দেশ। বহুত্ববাদের দর্শনই দেশটির মৌল নীতি। কিন্তু ঐতিহ্যবাহী বহুত্ববাদের ধ্রাণার মূলেই আঘাত হানতে শুরু করেছেন ট্রাম্প। উগ্র সাম্প্রদায়িকতার বিষ্পবাস্প খোদ ট্রাম্প অর্থাৎ মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিজেই ছড়াতে শুরু করেছেন। তাঁর এই কয়েকদিনের কর্মকা-ে তিনি বিশ্ববাসীকে অ্যাডলফ হিটলারের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। ট্রাম্পের উগ্র জাতীয়তাবাদী চরিত্রের মধ্যে হিটলারকে প্রতিভাত হচ্ছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিভিন্ন বিষয়ে উদ্বেগজনক বক্তব্য পৃথিবীর শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য চরম ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনা করা হচ্ছে।
সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনগুলি থেকে জানা যায়, খোদ আমেরিকাবাসী তাদের ভভিষ্যত নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে।  ডোনাল্ড ট্রাম্পের দায়িত্ব নেয়ার প্রথম সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন ব্যবস্থাপনা টিমের শীর্ষ কূটনীতিকরা একযোগে পদত্যাগ করেছেন। এতে করে চাপে পড়েছেন হবু পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। মার্কিন সিনেটে টিলারসনের মনোনয়ন এখনও চূড়ান্ত হয়নি। এরই মধ্যে এ গণপদত্যাগে তিনি আরও সমস্যায় পড়বেন বলে মনে করা হচ্ছে।
যুক্তরাষ্ট্রমুখী অভিবাসন সীমিত করতে বহু আলোচিত সেই নির্বাহী আদেশে সই করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার এই আদেশের ফলে আগামী চার মাস আর কোনো শরণার্থী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সুযোগ পাবে না। সিরীয় শরণার্থীদের ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে পরবর্তী আদেশ না দেয়া পর্যন্ত। এর বাইরে আরও কয়েকটি মুসলমানপ্রধান দেশের নাগরিকদেরও কড়াকড়ির মুখে পড়তে হবে, যাকে ট্রাম্প বলেছেন ‘একস্ট্রিম ভেটিং মেজার্স’। ট্রাম্প বলছেন, তার এই পদক্ষেপ উগ্র ইসলামিক জঙ্গিদের যুক্তরাষ্ট্র থেকে দূরে রাখবে। এ বিষয়টি নিয়ে আমেরিকাতে তো বটেই অন্যন্য দেশেও এর ব্যাপক প্রতিক্রিয়া চলছে।
আদেশে সই করার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ট্রাম্পের উদ্দেশ্যে তোপ দাগলেন মার্ক জুকারবার্গ। ফেসবুকের সিইও বলছেন, ‘রাষ্ট্র হিসাবে আমেরিকার জন্মই হয়েছিল অভিবাসীদের নিয়ে। তাই অভিবাসীদের নিয়ে অতিরিক্ত কড়াকড়ি করার কোনও মানে হয় না।
মেক্সিকো থেকে আসা অবৈধ অভিবাসীদের ঠেকাতে সীমান্তে দেয়াল তুলে দেয়ার ব্যাপারে একটি নির্বাহী আদেশ জারি করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেয়াল তৈরির কাজ অবিলম্বেই শুরু করবেন তিনি। শুধু তাই নয়- ওই প্রাচীর তৈরির অর্থ মেক্সিকোকে দিতে হবে বলে জানিয়েছেন। এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে ইতোমধ্যেই বাকযুদ্ধ শুরু হয়েছে। টাম্প ইতোমধ্যেই তার বিদেশ নীতিতে উগ্র জাতীয়তাবাদের প্রকাশ ঘটিয়েছেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উগ্র জাতীয়তাবাদী রাষ্ট্র বা সরকার প্রধান যারা মুসলিম বিদ্বেষী তাদের সাথে সম্পর্ক- সেতু গড়ে তুলতে সচেষ্ট হয়েছেন। এসব কিছু উদ্বেগ- উৎকণ্ঠার জন্ম দিয়েছে যে, ডোনাল্ড ট্রাম্প কী অনাকাক্সিক্ষত একটা বিশ্বযুদ্ধ বিশ্ববাসীর ওপর চাপিয়ে দিচ্ছেন কি?

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ