ট্রেইনি রিক্রট কনস্টেবল সমাপনী কুচঁকাওয়াজে আইিিজপি দায়িত্ব পালনে জনগণের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে

আপডেট: জুন ৩০, ২০২২, ১:৫৭ অপরাহ্ণ

চারঘাট প্রতিনিধি :


আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) বলেছেন, জাতীর পিতা শেখ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্বাধীনতার পরপরই দেশের পুলিশ বাহিনীকে জনগনের পুলিশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য নানা উদ্যেগ গ্রহন করেছিলেন।

তিনি ১৯৭২ সালের ৯ মে বাংলাদেশ পুলিশের প্রথম প্রশিক্ষন সমাপনী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। বর্তমান সরকারের সময় পুলিশের আধুনিকায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ পুলিশকে উন্নত দেশের পুলিশের সমপর্যায়ে উন্নীত করতে পুলিশের বাজেট বৃদ্ধি ও সাংগঠনিক কাঠামোতে ক্যাডার পদসহ বিভিন্ন পদ সৃষ্টি করা হয়েছে।

তিনি বৃহষ্পতিবার (৩০ জুন) সকালে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমী সারদায় ১৬৪তম ট্রেইনি রিক্রট কনস্টেবল(টিআসি) ২০২১ ব্যাচের ৪শত ৫৩জন শিক্ষানবীশ টিআরসিদের ছয় মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষন সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দান কালে এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন পুলিশ সদস্যদের আধুনিকায়নে অপরাধী সনাক্তকরন ও মামলা তদন্তে প্রকৃত তথ্য উদঘাটনের লক্ষে বাংলাদেশ পুলিশের সাইবার সেন্টার, ডিএনও ল্যাব, পুলিশ সদস্যদের কল্যাণের জন্য পুলিশ কল্যান ট্রাষ্ট, পুলিশের সেবা জনগনের দৌরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বিট পুলিশিং, কমিউনিটি পুলিশিং গঠন করা হয়েছে যা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল। জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ নির্মূলে পুলিশ প্রশংসনীয় ভুমিকা পালন করেছে।

তিনি পুলিশ বাহিনীর উদ্দেশ্যে বলেন, স্বাধীনদেশের পুলিশ হিসেবে পুলিশ বাহিনীর কর্তব্য জনগনকে সেবা করা, জনগনকে ভালবাসা দুর্দিনে জনগনকে সাহায্য করা, পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় জনগনের মৌলিক অধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে।

সবশেষে বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী টিআরসিদের মাঝে তিনি পুরস্কার বিতরণ করেন। এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমী, সারদার প্রিন্সিপ্যাল ও এআইজি আবু হাসান মুহম্মদ তারিক বিপিএম,

পুনাকের সভানেত্রী বেগম জীশান মীর্জা, উপজেলা চেয়ারম্যান ফকরুল ইসলাম পৌর মেয়র একরামুল হকসহ উচ্চ পদস্ত পুলিশ কর্মকর্তাগন এবং রাজশাহী বিভাগের পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ