ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের দুই মামলায় আব্বাসের জামিন

আপডেট: নভেম্বর ৩০, ২০২২, ১২:২২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা দুই মামলায় জামিন পেয়েছেন রাজশাহীর পবা উপজেলার কাটাখালী পৌরসভার বহিস্কৃত মেয়র আব্বাস আলী। মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে রাজশাহী সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. জিয়াউর রহমান তাঁর জামিন মঞ্জুর করেন।

আব্বাস আলীর আইনজীবী পারভেজ তৌফিক জাহেদী বলেন, কাটাখালীর প্রবেশমুখে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ এবং রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামানের পরিবার নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে করা দুটি মামলায় আব্বাস আলীর জামিন হয়েছে।

এর আগে গত বছরের ১ ডিসেম্বর ভোরে রাজধানী ঢাকার কাকরাইলের হোটেল রাজমণি ঈশা খাঁ থেকে আব্বাস আলীকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। পরে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এরপরই স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় তাকে মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয়। এ বিষয়ে গত বছরের ৮ ডিসেম্বর প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রণালয়।

আব্বাস আলী কাটাখালীর মেয়রের দায়িত্বে থাকা অবস্থায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে তার বিতর্কিত বক্তব্যের অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। গত বছরের ২২ নভেম্বর রাতে ১ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের অডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে তার বিরুদ্ধে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর আবদুল মমিন নগরের বোয়ালিয়া মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন।

এ ঘটনার কিছুদিন পর আব্বাস আলীর আরেকটি অডিও প্রকাশ্যে আসে। সেখানে তিনি রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামানের পরিবার নিয়ে কটূক্তি করেছেন বলে অভিযোগ ওঠে। এই ঘটনায় চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে কাটাখালী পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সাইদুর রহমান ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করেন।

আব্বাস আলী কাটাখালী পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য ছিলেন। তিনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হয়ে টানা দুই মেয়াদে মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন। তবে অডিও ভাইরালের পর তাঁকে দল থেকেও অপসারণ করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ