ডেসটিনির ভাইস প্রেসিডেন্টসহ চার জনের আত্মসমর্পণ

আপডেট: জুন ২৯, ২০২২, ৭:৩২ অপরাহ্ণ

ছবি: সংগৃহীত

সোনার দেশ ডেস্ক:


ডেসটিনি-২০০০ লিমিটেডের চার হাজার ১১৯ কোটি ২৪ লাখ টাকা মানিলন্ডারিং আইনের এক মামলায় দণ্ড প্রাপ্ত ভাইস প্রেসিডেন্ট মেজর (অব.) সাকিবুজ্জামান খানসহ চার জন আত্মসমর্পণ করেছেন।

বুধবার (২৯ জুন) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলমের আদালতে তারা আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
কারাগারে যাওয়া অপর তিন আসামি হলেন- ডেসটিনি গ্রুপের প্রতিষ্ঠান বেস্ট এভিয়েশনের অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার মোল্লা আল আমিন, হেড অব ফাইন্যান্স কাজী মোহাম্মদ ফজলুর করিম ও সুনীল বরণ কর্মকার।

সংশ্লিষ্ট আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো. বেলাল এ তথ্য জানান। এর আগে, গত ১২ জুন ডেসটিনি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল আমীনের স্ত্রী মিসেস ফারাহ দীবা আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ১২ মে ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেডের চার হাজার ১১৯ কোটি ২৪ লাখ টাকা মানিলন্ডারিং আইনের এক মামলায় এমডি রফিকুল আমিনসহ ৪৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেন আদালত। পাশাপাশি আসামিদের ২৩০০ কোটি টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।

রায়ে মেজর সাকিবুজ্জামান খানকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও এক কোটি টাকা জরিমানা, সুনীল বরণ কর্মকারকে ৮ বছর কারাদণ্ড ও ৫ কোটি টাকা জরিমানা, কাজী মোহাম্মদ ফজলুর করিমের পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ লাখ জরিমানা এবং মোল্লা আল আমিনের চার বছর কারাদণ্ড ও ১০ লাখ জরিমানার আদেশ দেন আদালত।

মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভের নামে ডেসটিনি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করে ১ হাজার ৯০১ কোটি টাকা। সেখান থেকে ১ হাজার ৮৬১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়। ওই অর্থ আত্মসাতের ফলে সাড়ে ৮ লাখ বিনিয়োগকারী ক্ষতির মুখে পড়েন বলে মামলা সূত্রে জানা যায়।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি