ঢাকা কলেজে সংঘর্ষে ১৯ নেতাকর্মীকে বহিষ্কার ছাত্রলীগের

আপডেট: জানুয়ারি ২৩, ২০১৭, ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ঢাকা কলেজে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় সংগঠনের কলেজ শাখার আহ্বায়ক নুর আলম ভূঁইয়া রাজুসহ ১৯ নেতাকর্মীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।
ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকর হোসাইন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রোববার তাদের বহিষ্কারের কথা জানানো হয়েছে।
বহিষ্কৃতদের মধ্যেত রাজুর প্রতিপক্ষ হিসেবে পরিচিত যুগ্ম আহ্বায়ক হিরন ভূঁইয়াও রয়েছেন।
বহিষ্কৃতরা অন্যরা হলেন- যুগ্ম আহ্বায়ক শাহজাহান ভূঁইয়া শামীম, সালেহ আহমদ হৃদয়, সামাদ আজাদ জুলফিকার; কমিটির সদস্য শাহরিয়ার রাশেদ, হাসানুজ্জামান মুন্না, রহমতুল্লাহ, রুবেল ম-ল ও সাদ্দাম হোসেন; কর্মী মাহমুদুর রহমান সৈকত, আব্দুল আজিজ ফয়েজ, নাইম ইবনে আজাদ, তুহিন, জসিম উদ্দিন, মাইনুল ইসলাম, মিল্টন খন্দকার রানা ও সুজন।
আধিপত্যত বিস্তার নিয়ে কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক রাজুর অনুসারীরা শনিবার রাতে একযোগে পাঁচটি ছাত্রাবাসে হামলা চালায় বলে প্রত্যহক্ষদর্শীরা জানান।
এ সময় ক্যাম্পাসে গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে, পুড়িয়ে দেয়া হয় বেশ কয়েকটি মটরসাইকেল।
উত্তর ছাত্রাবাসে ঘুমন্ত অবস্থায় কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ রাসেলকে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করা হয়। পরে ছাত্রাবাসগুলোতে মধ্য রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে বেশ কিছু লাঠি, রাম দা উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় ৩২ জনকে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রলীগের এক নেতা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, কয়েকদিন আগে নূরে আলম ভূঁইয়া রাজুকে আহ্বায়ক এবং ৩৫ জনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি হয়।
“কলেজের পাঁচটি ছাত্রাবাসের নিয়ন্ত্রণ ছয়জন যুগ্ম আহ্বায়কের হাতে থাকায় রাজু অনেকটাই কোণঠাসা ছিলেন।”
হিরন ভূঁইয়া ছাড়া ওই যুগ্ম আহ্বায়করা হলেন- রাসেল মাহমুদ, হুমায়ূন কবির রানা, শেখ রাসেল, সুলতান মাহমুদ ও ইমরুল হাসান লেনিন।- বিডিনিউজ