ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস আজ

আপডেট: জুলাই ১, ২০১৭, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস।
১৯২১ সালের ১ জুলাই যাত্রা শুরু করে দেশের সবচেয়ে প্রাচীন এই বিশ্ববিদ্যালয়। ২৮ জন কলা, ১৭ জন বিজ্ঞান, ১৫ জন আইন শিক্ষক এবং ১৮টি বিভাগ নিয়ে শুরু হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের পথচলা। তখন ছাত্র ছিল ৮৭৭ জন। প্রত্যোক ছাত্রকে কোনো না কোনো আবাসিক হলে ছাত্র হিসেবে থাকতে হতো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম শুরু হয় তিন বছরের অনার্স, তখন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ছিল ২ বছরের। তখনকার ব্রিটিশ শাসকদের অন্যায্য সিদ্ধান্তে পূর্ববঙ্গের মানুষের প্রতিবাদের ফল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এমনিতেই শিক্ষা-দীক্ষা আর অর্থনীতিতে এ অঞ্চল ছিল পিছিয়ে। বঙ্গভঙ্গের অবস্থার উন্নতি হয়েছিল অনেকটা। বঙ্গভঙ্গ রদ হওয়ার পর ঢাকার নবাব স্যার সলিমল্লাহ, টাঙ্গাইলের ধনবাড়ির নবাব সৈয়দ নওয়াব আলী চৌধুরী, শেরে বাংলা একে ফজলুল হকসহ স্থানীয় মুসলিম নেতাদের দাবি ছিল ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা। ১৯১২ সালের ২ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন পূর্ববঙ্গ সফররত ব্রিটিশ-ভারতের ভাইসরয় লর্ড হার্ডিঞ্জ। ১৯১৩ সালের নাতান কমিটির ইতিবাচক রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর ওই বছরের ডিসেম্বরেই সেটা অনুমোদন পায়। ১৯১৭ সালে গঠিত স্যাডলার কমিশনও ইতিবাচক প্রস্তাব দেয়। ১৯২০ সালের ১৩ মার্চ ভারতীয় আইন সভায় পাস হয় ‘‘দ্য ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যাক্ট (অ্যাক্ট নম্বর ১৩) ১৯২০’’। ওই বছরের ২৩ মার্চ গভর্নর জেনারেল বিলে সম্মতি দেন। এই আইনের হাত ধরেই প্রতিষ্ঠা পায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
ঢাকার সবচেয়ে অভিজাত ও সৌন্দর্যময় রমনা এলাকার প্রায় ৬০০ একর জমির ওপর পূর্ববঙ্গ ও আসাম প্রদেশের পরিত্যক্ত ভবন এবং ঢাকা কলেজের ( বর্তমান কার্জন হল) ভবনগুলোর সমন্বয়ে গড়ে তোলা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।