তানোরে আদিবাসীদের উপর হামলা ও উচ্ছেদ চেষ্টার প্রতিবাদে নগরীতে মানববন্ধন

আপডেট: নভেম্বর ২, ২০২১, ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহীর তানোর উপজেলার মালশিরা (চৌবাড়িয়া) গ্রামে আদিবাসী পরিবারের ঘর-বাড়ি ভাঙচুর, বসতভিটা দখল ও উচ্ছেদ চেষ্টার প্রতিবাদে এবং মুলহোতা ভূমিদস্যু হামিদুর রহমানসহ জড়িতদের গ্রেপ্তার, বিচার ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের ক্ষতিপূরণের দাবিতে জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রাজশাহী জেলা কমিটির উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) বেলা ১১ টায় সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের রাজশাহী জেলার সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়াড় এর সভাপতিত্বে মানবন্ধনে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক গণেশ মার্ডি, রাজশাহী জেলা সাধারণ সম্পাদক সুশেন কুমার শ্যামদুয়ার, কেন্দ্রীয়দপ্তর সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র হেমব্রম, কেন্দ্রীয় সদস্য বিভূতী ভূষণ মাহাতো, গোদাগাড়ী উপজেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ হেমব্রম, আদিবাসী যুব পরিষদ রাজশাহী জেলার সভাপতি উপেন রবিদাস, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান, সাধারণ সম্পাদক তরুন মুন্ডা, আদিবাসী যুব পরিষদের সদস্য উত্তম কুমার মাহাতো, মালশিরা গ্রামের ভুক্তভোগী দেবেন মুর্মু, শেফালি মুর্মু, সাধু বেরজন সরেন প্রমুখ।

সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাজাহান আলী বরজাহান, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি এবং রাজশাহী মানবাধিকার জোটের সহ-সভাপতি কল্পনা রায়, মাসাউসের নির্বাহী পরিচালক এবং জোটের সদস্য মেরিনা হাঁসদা, দৈনিক জনকন্ঠের ফটো সাংবাদিক সেলিম জাহাঙ্গীর প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা তানোরের আদিবাসীদের ঘরবাড়ি ভাংচুর, নির্যাতন, বসতভিটা জবরদখল ও উচ্ছেদ চেষ্টাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানান। তারা বলেন, উপজেলা প্রশাসনকে আমাদের এই ঘটনা সম্পর্কে ভ্রক্ষেপ করে নি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নি নিরাপত্তা রক্ষা বাহিনির কোন সদস্য। এমন কি তানোর উপজেলার আদিবাসীদের জন্য প্রধামন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বরাদ্দ সুযোগ-সুবিধাগুলো যেমন: ঘর, শিক্ষার্থীদের বৃত্তি, প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরের সুবিধা এবং বাইসাইকেল সঠিকভাবে আদিবাসীদের মাঝে বন্টন করে না উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা কোনভাবে আদিবাসীদের এই বিষয়টিকে গুরুত্ব না দিয়ে আদিবাসীদের তাড়িয়ে দেন তার অফিস থেকে। ভুক্তভোগী আদিবাসী পরিবার ও মালশিরা গ্রামের আদিবাসীদের নিরাপত্তার জোর দাবি জানানো হয়। সারাদেশে আদিবাসীদের উপর নির্যাতন, ভূমিদখল, নারী ধর্ষণ, ভূমি থেকে উচ্ছেদ বন্ধ ও আদিবাসীদের নিরাপত্তার দাবিও জানান বক্তারা। আদিবাসীদের আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি, সমতল আদিবাসীদের জন্য পৃথক মন্ত্রণালয় ও ভূমি কমিশন গঠনের দাবি জানান বক্তারা।

উল্লেখ্য, গত ২৩ অক্টোবর মধ্যরাতে আনুমানিক রাত ১ টায় জেলার তানোর উপজেলার মালশিরা গ্রামের আদিবাসী সাঁওতাল জাতিসত্তার দেবেন মুর্মু (৪৫) এর বাড়িতে হামলা করেন স্থানীয় ভূমিদস্যু হামিদুর রহমানের নেতৃত্বে ৩০-৪০ জন ভাড়াটিয়া গুন্ডা বাহিনী। হামলাকালীন সময়ে হামলাকারীরা অন্যান্য আদিবাসীদের ঘরবাড়িতে বাহিরে থেকে তালা মেরে আটকে রাখা হয়। দীর্ঘদিন থেকেই ভূমিদস্যু হামিদুর রহমান আদিবাসী দেবেন মুমূর্ষ পৈত্রিক জমি নিজের জমি দাবি করে হুমকি ও উচ্ছেদের চেষ্টা চালিয়ে আসছিল।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ