তানোরে আমন খেতে সবুজের সমারোহ ভালো ফলনের সম্ভাবনা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১, ১০:২৯ অপরাহ্ণ

তানোর প্রতিনিধি:


চলতি আমন মৌসুমে মাঠের পর মাঠ শোভা পাচ্ছে সবুজের ধানের সমারোহ। গত বছরের ধানের ন্যায্য দাম পেয়েছিলেন এলাকার চাষিরা। সেই আশায় চলতি বছরে আবারো ভালো ফলন পাওয়ার আশায় উপজেলার বিভিন্ন মাঠে আমন ধানের গাছগুলো পরিচর্যায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছে এলাকার কৃষকরা। সেই সাথে তারা পোকামাকড় দমনে কীটনাশক প্রয়োগেই ব্যস্ত সময় পার করছেন।

তানোর উপজেলার একাধিক কৃষকরা জানান, এবার আমন মৌসুমের শুরুইে বুকভরা আশা নিয়ে দিনভর মাথার ঘামপায়ে ফেলে মাঠে কাজ করছেন তারা। যেন কোন ভাবে পোকামাকড় ধান খেতের ক্ষতি সাধন করতে না পরে। এছাড়াও তারা ইদুর যেন ধান খেতের গোড়া কেটে নষ্ট করতে না পারে তার জন্য নানা ধারণে কৌশুল ব্যবহার করছেন।

তানোর উপজেলার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আলী রেজা জানান, এবছর চলতি আমর মৌসুমে উপজেলা ২টি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নে ২১ হাজার ৫শ হেক্টর আমন চাষাবাদ করেছেন কৃষকরা। তবে এর মধ্যে ২০ হাজার ১০০হেক্টর উফশি ও বাকীঁগুলো আতপ জাতের ধান।

তিনি আরও জানান, অন্যান্য বছর খরায় পানির সংকট থাকলেই চলতি বছর আশানুরুপ বৃষ্টিপাত হওয়ায় এখন পর্যন্ত পানির প্রভাব থেকে মুক্ত উপজেলার কৃষকরা।
তানোর উপজেলার চাঁন্দুড়িয়া পাঁচন্দর, বাধাইড়, কলমা মু-ুমালা তানোর পৌর সদরসহ বিভিন্ন মাঠে গিয়ে দেখা গেছে, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় মাঠের পর মাঠ সবুজে সমারোহ। ধান খেত যেন বাতাসে দোল খাচ্ছে।

শুক্রবার ১১টার দিকে মোহনপুর মাঠে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেল গোলাম মোস্তুফা নামের এক যুবক আমন ধানের জমিতে ঘাস পরিস্কার করছে। তিনি বলেন, এটা আমন মৌসুমের মাঝামাঝি সময়। এ সময়ে ধানে গোড়ালী পরিস্কার পরিছন্ন না রাখলে পঁচনের সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আগাম জমিতে ঘাস পরিস্কার পরিছন্ন করে রাখছি।
একই মাঠে একটু দূরে আমন ক্ষেতে কৃষক রইচ উদ্দিন টিপুর সাথে দেখা হলে তিনি বলেন, এবারে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এখন পর্যন্ত আমন ক্ষেত ভালোই আছে। এর মধ্যে ধান গামরে বসতে শুরু করেছে। তবে তিনি হাসির শুরে জানালেন, এবার বোরো ধানের ভালো দাম ধান পেয়েছি। চলতি মৌসুমে ভালো ফলনের পাশাপাশি দামও ভালো পাবো বলে আশা করছি।

এছাড়া উপজেলার কয়েকজন কৃষকের সাথে আলাপকালে তারা বলেন, গত বোরা মৌসুমসহ বর্ষালি ধানের ন্যায্য দাম পেয়েছি। বোরা মৌসুমে জমিতে ধানের বাম্পার ফলনো হয়েছে। গত গত মৌসুমে বোরার খাটো জিরা ধান বিক্রয় করেছি প্রতিমন ১হাজার ১০০ টাকা থেকে ১হাজার ২০০ টাকা দরে। এছাড়াও অন্য জাতের ধান কেনাবেচা হয়েছে বেশ ভালো দরে।

তানোর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা শামিমুল ইসলাম জানান, এখন থেকে আমন ধান ঘরে তোলা পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে বা বড় ধারনে কোন দূর্যোগ না দেখা দিলে চলতি মৌসুমে আমন ধানের বাম্পার ফলন হবে। সেই সাথে কৃষকরা ধানের দামও ভালো পাবে বলে আশা করছেন এ কর্মকর্তা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ