তানোরে এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি আলু চাষ

আপডেট: ডিসেম্বর ৭, ২০১৬, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

লুৎফর রহমান, তানোর



রাজশাহীর তানোরে আলু পরিচর্চায় চাষিরা ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। আলু চাষিরা গত বছরের বাম্পার ফলন ও দাম ভালো পেয়ে এবার  আবারো লাভের আশায় দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তাদের আশা বছরের এ খেকে ভালো করতে পারলে আগামী দিনে আবারো বাম্মার ফলন ও দাম  ভালো পাবো। এ আশায় তারা নিরলস ভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তাই বুক ভরা স্বপ্ননিয়ে চলতি মৌসুমে মাঠে বিজ রোপন করার পর জমির আলুর গাছ পরিচর্চায় কাজে উঠে পড়ে লেগেছে তানোরের চাষিরা।
চলতি মৌসুমে উপজেলা কৃষি অফিস আলুর লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করেছিল প্রায় ৮ হাজার হেক্টর। কিন্তু কৃষকদের আলও চাষের আগ্রহে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার হেক্টর।
গতকাল উপজেলার বিভিন্ন মাঠ ঘুরে চাষিদের সাতে কথা বলে জানা যায়, এবার মৌসুমের শুরতে বীজ, সার ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এখন পর্যন্ত আলুর আবাদ ভালো রয়েছে। তবে আলু রোপনের সময় শ্রমিক সঙ্কট থাকলে ও এখন কিছুটা দূর হয়েছে। তবে কৃষকদের অভিযোগ গতবারের চেয়ে এবারে আলুর বীজের দাম ও শ্রমিক সঙ্কটের কারণে উৎপাদন খরচ অনেক বেশী হবে।
কৃষ্ণপুর গ্রামের আলু চাষি আব্দুর রাজ্জাক জানান, গত বছর আলু দাম  প্রথম দিকে ভাল ছিল না। তবে পরে প্রতি বস্তা (৮৪) কেজি ২ হাজার ২ শত টাকা করে বিক্রি করেছি। চলতি মৌসুমের শুরুতে আলুর বীজের দাম কৃষকদের না গালের বারে ছিল। তবে সারের দাম ঠিক আছে বলে জানান তিনি।
জিওল  গ্রামের কৃষক মহাসিন জানান, আগাম জাতের আলু চাষ করে বর্তমানে পরিচর্চায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছি শ্রমিকদের নিয়ে। তবে ভয় হচ্ছে গত বছরে মতো যেন না হয়। কেননা আমানের বীজ নিয়ে জমিতে রোপন করে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।
তানোর উপজেলার কৃষি অফিসার শফিকুল ইসলাম জানান, সারের কোন সমস্যা না থাকায় চাষিরা সময় মত জমিতে আলু রোপন করতে পেরেছেন। বর্তমানে আলুর গাছ পরিচর্চায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তানোরে আলু চাষিরা।
তিনি আরো বলেন, গতবারের চেয়ে এবারে কৃষকরা লাভবান হওয়ার অনেক সম্ভবনা রয়েছে। যদি আলু উত্তোলনের সময় আবহাওয়া অনুকূলে থাকে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ