তানোরে কৃষকলীগের সভাপতির বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অনশন!

আপডেট: জুন ১৮, ২০২৪, ৮:১০ অপরাহ্ণ

তানোর প্রতিনিধি:


রাজশাহীর তানোর উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ও পাড়িশো দূর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রামকমল সাহার পুত্র জয়ন্ত কুমার সাহার সঙ্গে
বিয়ের দাবিতে তার বাড়িতে অনশনে বসেছেন অনার্স পড়ুয়া এক ছাত্রী। গত ১৬ জুন রোববার উপজেলার কামারগাঁ ইউনিয়নের (ইউপি) পাড়িশো গ্রামে প্রধান শিক্ষক রাম কমল সাহার বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে। এদিকে এখবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। সেই সাথে দ্রুত সময়ের মধ্যে বিয়ে না হলে আত্মহননের হুমকি দিয়েছেন ওই ছাত্রী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এদিন সন্ধ্যায় অনার্স পড়ুয়া ওই শিক্ষার্থী প্রেমিক জয়ন্ত কুমার সাহার খোঁজে তার বাড়িতে আসে। কিন্তু তার আশার খবরে কৌশলে জয়ন্ত পালিয়ে যায়। এসময় ওই শিক্ষার্থী জয়ন্তের সঙ্গে তার বিয়ে না দিলে আত্মহননের হুমকি দিয়ে অনশনে বসেছে। অনশনে বসা ওই শিক্ষার্থীর ওপর মানসিক চাপ প্রয়োগ করায় তার জীবন অনেকটা সংকটাপন্ন বলে একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছে। এদিকে ওই ছাত্রী কে একের পর এক নানা ধরনের হুমকি দিচ্ছেন কৃষকলীগের সভাপতি প্রধান শিক্ষক রাম কমল সাহা বলেও গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকি ক্ষমতা সীন দলের নেতা হওয়ার কারনে প্রশাসনও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন না বলে দাবি গ্রামবাসীর।

জানা গেছে, রামকমল সাহার পুত্র জয়ন্ত কুমার সাহা একটি বে-সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন। ভিকটিমের ভাষ্য, মুঠোফোনের সুত্রে পরিচয় এবং প্রায় দু’বছর ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। কিন্তু তিনি তাকে বিয়ের কথা বলায জয়ন্ত বিয়ে করতে অস্বীকার ও তার সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করেছে। ফলে বাধ্য হয়ে ওই শিক্ষার্থী জয়ন্তের সঙ্গে বিয়ের দাবিতে অনশনে বসেছে। এবিষয়ে জয়ন্ত কুমার সাহা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই মেয়ে তাকে ফাঁসাতে চাইছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে রাম কমল সাহা বলেন, ওই মেয়ে যদি তার ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের কোনো প্রমাণ দিতে পারেন তাহলে বিয়ে দিতে তাদের কোনো আপত্তি নাই। তিনি বলেন, আগামিকাল মেয়ের পরিবারের লোকজন আসবে আসার পর দেখা যাক কি হয়।

এবিষয়ে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসির দায়িত্বে থাকা এসআই আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনা জানার পর মেয়ের পরিবার কে খবর দেয়া হয়েছে। অভিযোগ দিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Exit mobile version