তানোরে হাঁস পালনে স্বাবলম্বীর পথে ৫২০ পরিবার

আপডেট: মার্চ ২২, ২০১৭, ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

লুৎফর রহমান, তানোর



রাজশাহীর তানোরে ওয়ার্ল্ড ভিশনের হাঁস পালনে স্বাবলম্বী হওয়ার পথে দুই ইউনিয়নের প্রায় ৫২০টি পরিবার। এর ফলে অসহায় হতদরিদ্র পরিবারগুলোর ধীরে ধীরে ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটতে শুরু করেছে। বর্তমানে তারা হাঁস পালন করে নিজ নিজ পরিবারগুলোকে সচ্ছল করে তুলছে।
এছাড়া উপজেলার অনেক হত দরিদ্ররা বলছেন, শুধু দুইটি ইউনিয়নে নয়, ওয়ার্ল্ড ভিশন যদি উপজেলার সাতটি ইউনিয়ন ও দুইটি পৌর এলাকায় হতদরিদ্রদের প্রশিক্ষণ দিয়ে ও হাঁস দিয়ে সহয়তা করতো তাহলে এলাকার গরীব মানুষেরা স্বাবলম্বী হতে পারতো। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ তানোর এডিপির সহযোগিতায় এবং তাইওয়ানের অর্থায়নে উপজেলার দুই ইউনিয়নে মোট ৫২০ পরিবারের আয় বৃদ্ধি ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে হতদরিদ্র নারীদের তিনদিন করে প্রশিক্ষণ দিয়ে বিনামূল্যে তালন্দ ও পাঁচন্দর ইউনিয়নে মোট ৫২০ পরিবারে হাঁস বিতরণ করা হয়। তালন্দ ইউনিয়নের প্রতিটি পরিবারকে ৩৩টি ও পাঁচন্দর ইউনিয়নের প্রতিটি পরিবারকে ৩৫টি করে খাকি ক্যামবেল হাঁস বিতরণ করা হয়েছে। যার মূল্য প্রায় ৬২ লাখ টাকা।
এছাড়া প্রতিটি পরিবারে প্রাথমিকভাবে ৬০ কেজি করে উন্নতমানে হাঁসের খাদ্য, হাঁসের খাবারের পাশাপাশি প্রতিটি পরিবারে খাদ্যপট, পানিরপট ও ডিম রাখার পাত্র দেয়া হয়। এগুলোর আনুমানিক মূল্য ৪৮ লাখ ৬ হাজার টাকা।
ইতোমধ্যে তালন্দ ইউনিয়নের উপকারভোগিরা নিয়মিত হাঁসের ডিম পেতে শুরু করেছেন। এসব ডিমের হিসাব প্রায় ৩২ হাজার, যার বাজারমূল্য প্রায় ২ লাখ টাকা। উপকারভোগিরা এ পর্যন্ত প্রায় এক লাখ ৭০ হাজার টাকার ডিম বিক্রি করেছেন। ডিমের টাকা দিয়ে তাদের পরিবারের ছেলে মেয়েদের স্কুলের সহায়ক বই, স্কুলব্যাগ, স্কুলড্রেস এবং অনেকে প্রাইভেট ফি দিচ্ছেন।
এনিয়ে তালন্দ ইউনিয়নের আড়াদিঘি গ্রামের মাতুয়ারা, মমতাজ, শাহজাদি, রিনা, মমেনা, আলেয়া, রুনা ও জুলেখা জানান, আমরা ওয়ার্ল্ড ভিশনের হাঁস পালনের প্রশিক্ষণ এবং ওখান থেকে বিনামূল্যে পাওয়া হাঁস পালনের মাধ্যমে আমরা আগের চেয়ে অনেক সচ্ছল হয়েছে। হাঁসগুলো থেকে প্রতিদিন ডিম পাচ্ছি। এসব ডিম সংসারের চাহিদা পূরণের পরে বাজারে বিক্রি করে ছেলে মেয়েদের স্কুলের সহায়ক বই, স্কুলব্যাগ, স্কুলড্রেস এবং প্রাইভেট ফি দিতে পারছি।
বিষয়টি নিয়ে তানোর এডিপি ম্যানেজার মাইকেল গমেজ জানান, উপজেলার দুইটি ইউনিয়নে মোট ৫২০ পরিবারের আয় বৃদ্ধি ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে হতদরিদ্র নারীদের তিনদিন করে প্রশিক্ষণ দিয়ে বিনামূল্যে তালন্দ ইউনিয়নের ২৬০ পরিবার ও পাঁচন্দর ইউনিয়নে ২৬০ পরিবারে হাঁস বিতরণ করা হয়েছে। এর মাধ্যমে হতদরিদ্র মানুষদের স্বাবলম্বী করার চেষ্টা করছি বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ