তানোরে ৪৭ বিঘা জমির খড়ের পালা ও দোকানে আগুন

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪, ৮:৫০ অপরাহ্ণ


তানোর প্রতিনিধি:রাজশাহীর তানোরে আলুচাষী লুৎফর রহমানের ৪৭ বিঘা জমির খড়ের পালায় এবং লাবলু নামের এক যুবকের দোকানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। আগুনে খড় ও দোকানে থাকা মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন ইউপি’র চিমনা উত্তর-পাড়া গ্রামে ঘটে আগুন লাগার ঘটনাটি। সংবাদ পেয়ে ফায়ার সার্ভিস প্রায় ৩ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হোন বলে জানান খড়ের মালিক। ফলে এক-সাথে এতগুলো খড় ও দোকানের মালামাল পুড়ে যায়ায় চরম হতাশ হয়ে পড়েছেন কৃষক, দোকানি, সেই সঙ্গে হঠাৎ এমন আগুনের ঘটনায় গ্রামে চরম আতঙ ছড়িয়ে পড়েছে। পরদিন মঙ্গলবার দুপুরের দিকে থানার ওসি আব্দুর রহিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

লুৎফর জানান, আমি পরিবার নিয়ে রাজশাহীতে বসবাস করি। আর মা ভাইয়েরা চিমনা গ্রামে থাকে। চিমনা মাঠে দীর্ঘ দিন ধরে ৭০/৮০ বিঘা জমিতে আলু চাষ করি। সোমবার তানোর এসে রাত ৮ টার দিকে শহরে চলে গিয়েছিলাম। ফজরের আগে আমার চাচাতো বোন মোবাইল ফোনে জানায় খড়ের পালায় আগুন লেগে পুড়ে শেষ হয়ে গেছে।

তিনি আরো জানান, ফজরের নামাজ পড়ার জন্য প্রতিবেশী রুবেল বের হলে আগুন দেখতে পেয়ে চিৎকার দেয়া শুরু করেন। সাথে সাথে প্রতিবেশিসহ গ্রামের লোকজন আগুন নিভানোর চেষ্টা করেন এবং ফায়ার সার্ভিস কে খবর দেয়া হলে দ্রুত এসে তিন ঘণ্টা প্রচেষ্টা চালানোর পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। কিন্তু তার আগেই খড় পুড়ে গেছে। খড়গুলো জ্বালানি ছাড়া কিছুই হবে না। প্রায় ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা থেকে ২ লাখ ৭০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।

দোকানদার লাবলু বলেন, চিমনা উত্তরপাড়া মোড়ে মুদির দোকান ছিল। প্রতিদিনের ন্যায় রাত প্রায় ১০ টার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে যায়। ভোরে আগুন লাগিয়ে দোকানের মালামাল সহ টিভি ফ্রিজ পুড়ে নষ্ট হয়ে গেছে। ১ লাখ ৬০/৭০ হাজার টাকার মত ক্ষতি হয়েছে। দোকানের ব্যবসা দিয়ে সংসার চলে। এখন মালামাল তুলবো কিভাবে, সংসার চালাবে কিভাবে এসব নিয়ে মারাত্মক দুশ্চিন্তায় আছি।
লুৎফর রহমান বলেন, প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আগুন লাগার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে ।

থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুর রহিম বলেন, আগুনে পুড়ে যাওয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে, তদন্ত চলমান রয়েছে। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
প্রসঙ্গত, এর আগে চলতি মাসে ১৫ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে আলোচিত জিয়ারুল হত্যা মামলার ১ নম্বর আসামী মেম্বার ও তালন্দ ইউপির আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসানের বালাইনাশক দোকানে আগুন দেয়া হয়।

চলতি বছরের ১১ জানুয়ারি দিবাগত রাতে তালন্দ ইউনিয়ন ইউপির মোহর-গ্রামের কীটনাশক ব্যবসায়ী মাসুদের প্রায় ২৫-৩০ বিঘা জমির খড়ে আগুন দেওয়া হয়।
রোপা আমন ধান উত্তোলন করে মাড়াইয়ের জন্য খাম্বা মেরে রাখেন পাঁচন্দর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মেম্বার চিমনা দক্ষিণপাড়া গ্রামের পলাশ। তার ধানে রাতের আঁধারে আগুন দেয়া হয়। এঘটনায় আদালতে মামলা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ