তানোর ইউএনও অফিসের পিয়ন আরিফকে আপসারণের দাবি

আপডেট: জুন ১৬, ২০১৭, ১:০৬ পূর্বাহ্ণ

তানোর পৌর প্রতিনিধি


রাজশাহীর তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (ইউএনও) কার্যালয়ের পিয়ন আরিফের হয়রানি ও হুমকি থেকে বাঁচতে তার অপসারণের জন্য ডাকযোগে জেলা প্রশাসক ও ইউএনওকে সরাসরি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। গত বুধবার দুপুরে তানোর পৌর এলাকার জিওল মহল্লার জয়নাল নামের এক দিনমজুর এ অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগে বলা হয়েছে, জয়নালের ছেলে জাহাঙ্গীরকে গত তিন মাস আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ভ্রাম্যমাণ আদালতে ছয় মাসের কারাদ- দেয়া হয়। জামিনে তাকে মুক্ত করতে উচ্চ আদালতে আপিল করে জাহাঙ্গীরের বাবা জয়নাল। আপিলের দরখাস্ত আমলে নিয়ে মামলার নথিপত্রের নকল সরবরাহে আদেশ দেন আদালত। আদেশের কপি নিয়ে গত মাসের ২২ তারিখে ইউএনও’র দফতরে যান তিনি। এসময় অফিসের পিয়ন আরিফ কপিটি হাতে পেয়ে ৫শ টাকা চান। অনুরোধ করে ৪শ টাকা দিয়ে কাজ করে নেন জয়নাল।
এরপর বিজ্ঞ আদালত ইউএনও দফতর হতে নথি তলব করে চিঠি দেন। চিঠিটি চলতি মাসের ৮ তারিখে ইউএনও অফিস সহকারী অনিল বাবুকে দেয়া হয়। কিন্তু চিঠি নেন নি তিনি। ফলে ইউএনওকে অফিসের বাইরে দেখে চিঠিটি দেখানো হয়। আদালতের এমন চিঠি দেখে পিয়ন আরিফকে ১১ জুন রোববারের মধ্যে পাঠানোর নির্দেশ দেন। কিন্তু রোববারে চিঠি পাঠানো হয় নি। এ ঘটনায় হতাশ হয়ে জয়নাল ১২ জুন চিঠির খোঁজে অফিসে যান। পিয়ন আরিফ জয়নালকে জানান, চিঠি পাঠানো নিয়ে ভেজাল হয়েছে। এক হাজার ২শ টাকা খরচ লাগবে। তবেই চিঠি আদালতে যাবে। এর কারণ জানতে চাইলে দম্ভোক্তি করে পিয়ন আরিফ বলেন, তিনি স্থানীয়। তার বাবা আবদুর রহিম এক সময় তানোরে বিএনপি দল চালিয়েছেন।
এছাড়া তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা। তিনি অফিসের পিয়ন হলেও সব কিছু তার নিয়ন্ত্রণে। তার চাকুরিটাই দালালি। দালালির টাকা ছাড়া চিঠি আদালতে যাবে না। এছাড়া বিষয়টি নিয়ে জানাজানি করা হলে ঘাড় ধরে ইউএনও’র কাছে নিয়ে জেলে পাঠানোর হুমকি দেন বেপরোয়া আরিফ। শুধু জয়নালকে নয় ইউএনও অফিসে সেবা নিতে আশা শতশত মানুষের কাছে বিভিন্ন কাগজপত্র খরচের নামে টাকা নিয়ে হয়রানি করার আরো অনেক অভিযোগ রয়েছে বেপরোয়া পিয়ন আরিফের বিরুদ্ধে। এ কারণে নিরুপায় হয়ে তিনি পিয়ন আরিফের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়ে তাকে আপসারণের দাবি জানিয়েছেন।
জানতে চাইলে পিয়ন আরিফ এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি অফিসে পিয়নের কাজ করেন। ফাইলপত্র কখনো দেখেন না। তাকে সমাজে হেও প্রতিপন্ন করতে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহা. শওকাত আলী বলেছেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ