তামাকজনিত রোগে বছরে ৬০ লাখ মানুষের মৃত্যু বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবসের আলোচনায় বক্তারা

আপডেট: জুন ১, ২০১৭, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


সভায় বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ- সোনার দেশ

কেবল তামাকজনিত কারণে ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগে বিশ্বে প্রতিবছর ৬০ লাখ মানুষ মারা যান। এর মধ্যে বাংলাদেশেই মারা যায় ৫৭ হাজার মানুষ। আর পঙ্গুত্ব বরণ করেন ৩ লাখ ৮২ হাজার মানুষ। চিকিৎসা, মৃত্যু ও পঙ্গুত্বের কারণে প্রতি বছর প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) এক গবেষণার কথা উল্লেখ করে গতকাল বুধবার দুপুরে অনুষ্ঠিত এক আলোচনাসভায় এই তথ্য জানানো হয়। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব অনুযায়ী তামাক খাত থেকে বাংলাদেশের বছরে আয় মাত্র ২ হাজার ৪০০ কোটি টাকা। এই হিসাবে বছরে নিট ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়ায় ২ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। যা খুবই উদ্বেগজনক বলেও উল্লেখ করা হয় ওই সভায়।
রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উপলক্ষে রাজশাহী জেলা টাস্ক ফোর্স কমিটি এই আলোচনাসভার আয়োজন করে।
সভায় রাজশাহীর সিভিল সার্জন ডা. সঞ্জিত কুমার সাহার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আহমেদ আলী, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. ফারহানা হক, মেডিকেল অফিসার ডা. ফরিদ হোসেন।
আলোচনা সভায় বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ২০০৪ সালের জরিপ তুলে ধরে বলা হয়, প্রতি ৬ সেকেন্ডে একজন করে প্রতি বছর এই ৬০ লাখ মানুষ তামাকজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। এই হিসাবে ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বে প্রতিবছর তামাকের কারণে মারা যাবে ১ কোটি মানুষ, যার ৭০ লাখই বাংলাদেশের মতো তৃতীয় বিশ্বের অধিবাসী। তাই বাঁচতে হলে এখনই তামাকজাত পণ্য বর্জন করতে হবে।
এর আগে সকালে নগরীতে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস পালনের লক্ষে শোভাযাত্রা বের করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে থেকে শোভাযাত্রা বের করে এন্টি টোব্যাকো এ্যালাইন্স- আত্মা’র রাজশাহী জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ। শোভাযাত্রাটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে তারা রাজশাহী জেলা টাস্ক ফোর্স কমিটির আলোচনা সভায় অংশ নেয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ