তাড়াশে ৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘বন্ধ রেখে’ এমপির মেজবান

আপডেট: জুলাই ২০, ২০১৭, ১২:৫৮ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আধাবেলা ‘বন্ধ রেখে’ মাঠে মেজবান করেছে সরকার দলীয় এমপি ম. ম. আমজাদ হোসেন মিলন।
বুধবার তাড়াশ ডিগ্রি কলেজ, ইসলামিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও তাড়াশ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ মেজবান হয়।
এ তিন প্রতিষ্ঠানের রয়েছে একই মাঠ।
সরেজমিন জানা যায়, সাংসদের স্ত্রী ডেইজি মিলন, দুই ছেলে ম. ম. জাকির হোসেন জুয়েল ও ম. ম. জার্জিয়াস মিলন রুবেল হজ পালনের জন্য ২৪ জুলাই সৌদি আরব যাবেন। সেজন্য এই মেজবানের আয়োজন করা হয়।
তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠে প্যান্ডেল তৈরির পাশাপাশি শ্রেণিকক্ষের ভিতরেও খাওয়ানো হয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ স্থানীয় প্রায় চার হাজার অতিথিকে। পাঁচটি গরু ও পাঁচটি ছাগল জবাইয়ের পর মঙ্গলবার ভোর থেকে মাঠে রান্নাসহ অন্য কাজ করতে দেখা গেছে।
তাড়াশ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম দুপুরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “স্কুলের অফিস খোলা রয়েছে। মাঠে এমপি সাহেবের অনুষ্ঠান চলছে। তাকে তো আমাদের সহায়তা করতেই হবে। এ অবস্থায় স্কুলের শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসবে কি-না সেটা তাদের ব্যাপার।”
সকাল থেকে সেই স্কুলে কোনো শিক্ষার্থী আসতে দেখা যায়নি।
তাড়াশ ইসলামিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম বলেন, “স্কুলে শিক্ষার্থীদের চলমান পরীক্ষা দুপুর ১টায় শেষ হয়েছে। অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে ১টার পর। এতে তেমন কোন অসুবিধা হয়নি।”
তাড়াশ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান মনি বলেন, “এমপির অনুষ্ঠানের কারণে আধা বেলা কলেজ বন্ধ রাখা হয়েছে।”
এ নিয়ে এমপি আমজাদ হোসেন মিলন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমি কোনো প্রতিষ্ঠান বন্ধ করিনি। কলেজের অধ্যক্ষের অনুমতি নিয়েই অনুষ্ঠান করেছি। গতরাত থেকে কলেজের কক্ষ ছাড়া অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের কক্ষ ব্যবহার করা হয়নি।”
এমপি ম. ম. আমজাদ হোসেন মিলনের বড় মেয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য হোসনেআরা লাভলীর ফেইসবুক থেকে
এমপি ম. ম. আমজাদ হোসেন মিলনের বড় মেয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য হোসনেআরা লাভলীর ফেইসবুক থেকে
বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবিরের মোবাইল ফোনে বার বার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ