তিন তালাক অচল: কেন্দ্রকে সুপ্রিম কোর্ট

আপডেট: অক্টোবর ৮, ২০১৬, ১১:৪৯ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক
দিল্লি ভারতের মতো ধর্মনিরপেক্ষ দেশে তিন তালাকের জায়গা হতে পারে না বলে সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়ে দিল কেন্দ্র। মুসলিম সমাজে প্রচলিত তিন তালাক নিয়ে কেন্দ্রের মতামত জানতে চেয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। এদিন মুসলিমদের এই বিচ্ছেদের রীতিরই ঘোরতর বিরোধিতা করে কেন্দ্র জানাল, ভারতের সংবিধান নারী, পুরুষ নির্বিশেষে সমস্ত ধর্মের মানুষকে সমান অধিকার দিয়েছে। সেখানে তিন তালাকের মতো রীতি মুসলিম নারীর মৌলিক অধিকার খর্ব করে। তাদের বঞ্চিত করে। তিন তালাকের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিলেন মুসলিম সমাজকর্মীরা।

01. Talak

বিষয়টি এখন সর্বোচ্চ আদালতের বিবেচনাধীন। এক দিকে যেমন তিন তালাক নারীদের অধিকার খর্ব করছে বলে যুক্তি দেয়া হচ্ছে, অন্যদিকে আবার এ দেশের সংবিধান সমস্ত নাগরিককে স্বাধীন ধর্মাচরণের অধিকার দিয়েছে। বিয়ে, বিচ্ছেদ, উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত সম্পত্তি নিয়ে প্রত্যেক ধর্মের নিজস্ব দেওয়ানি বিধি রয়েছে। তাই সংখ্যালঘুদের এই তিন তালাকের বিষয়ে কতটা হস্তক্ষেপ করা যেতে পারে, সেই নিয়েও ভাবনাচিন্তা শুরু করে সুপ্রিম কোর্ট।

 

এ বিষয়ে মত চায় কেন্দ্রেরও। বিষয়টি নিয়ে ভাবনাচিন্তার পর কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রক তাদের বক্তব্য জানিয়েছে। এ ক্ষেত্রে তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা হল, এই প্রথম মুসলিম ধর্মগুরুদের বিরুদ্ধে গিয়ে কোনও অভিমত দিল কেন্দ্র। মুসলিমদের সর্বোচ্চ সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী সংগঠন অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড আগেই জানিয়েছে, সংখ্যালঘুদের ধর্মাচরণের বিষয়ে আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে না।

 

সংস্কারের নামে ব্যক্তিগত আইন বদলাতেও পারে না। এতে মুসলিমদের মৌলিক অধিকার খর্ব হবে। যদিও ভারতীয় মুসলিম নারী আন্দোলন-এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা জাকিয়া সোমান জানিয়েছিলেন, কোরান কখনওই তিন তালাককে বৈধতা দেয়নি। কোরান বলেছে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে স্বামী–স্ত্রীর মিটমাট করা জরুরি। ১৯৮৫ সালে সুপ্রিম কোর্ট শাহ বানুকে বিচ্ছেদের পর খোরপোশ দেয়ার নির্দেশ দেয়। কিন্তু দেশ জুড়ে মুসলিমদের প্রতিবাদের জেরে সেই রায় খারিজ করে দেয়।- আজকাল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ