তৈমূরকে বহিস্কার করলো বিএনপি

আপডেট: জানুয়ারি ১৯, ২০২২, ১:০১ অপরাহ্ণ

এ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার

সোনার দেশ ডেস্ক :


দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের সুষ্পষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে নারায়ণগঞ্জের নির্বাচনে পরাজিত স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ও সাবেক জেলা বিএনপির আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকে বিএনপি’র সদস্য পদসহ সকল পদ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে।

পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকেও বহিস্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভীর স্বাক্ষরিত পৃথক দুটি চিঠিতে এ দলীয় সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

উভয় চিঠিতেই উল্লেখ করা হয়েছে যে, দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুষ্পষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির গঠনতন্ত্র

মোতাবেক আপনাকে (তৈমূর আলম খন্দকার ও এটিএম কামাল) দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে নির্দেশক্রমে বহিস্কার করা হলো। এই সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর হবে।
এদিকে বহিস্কারের বিষয়ে মহানগর বিএনটি সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল রাইজিংবিডিকে জানিয়েছেন, দল থেকে বহিস্কারের কোন চিঠি এখনো তিনি পাননি।
অপর দিকে এ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার মেবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।
জানা যায়, গত ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেন অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। এই বিষয়টিকে কেন্দ্রীয় বিএনপি ভালোভাবে নেয়নি।
নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীর কাছে ৬৬ হাজারেরও বেশি ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন।
অবশ্য নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র দাখিলের পরই জেলা বিএনপির আহŸায়ক পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয় তৈমূর আলম খন্দকারকে। তার পরিবর্তে ভারপ্রাপ্ত আহŸায়কের দায়িত্ব দেয়া হয় মনিরুল ইসলাম রবিকে।
এর আগে গত ৩ জানুয়ারি বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা পদ থেকেও তৈমূর আলম খন্দকারকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি