ত্রাসের অন্য নাম ওমিক্রন! তবুও সতর্কতা জরুরি

আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২১, ১২:১৪ পূর্বাহ্ণ

করোনাভাইরাস পৃথিবী থেকে যায় যায় বলেও যায় না। অনেকটা স্বস্তি এসেছিল। কিন্ত হঠাৎ করেই অস্বস্তিই শুধু নয়, নতুন উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার সূত্রপাত হয়েছে। এই মুহূর্তে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের কাছে ত্রাসের অন্য নাম ওমিক্রন। করোনার নতুন প্রজাতি বি.১.১.৫২৯-র খোঁজ মিলেছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। নভেম্বরের শেষে এক সপ্তাহের মধ্যেই এই প্রজাতির সংক্রমণে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ইতোমধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ওমিক্রনকে ‘উদ্বেগের কারণ’ হিসেবে চিহ্নিত করেছে। অতীতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ-এর জন্য দায়ী ডেল্টা প্রজাতিকেও ‘উদ্বেগের কারণ’ হিসেবে জানিয়েছিল হু। এই পরিস্থিতিতে স্বাভাবিকভাবেই তৃতীয় ঢেউ-র আশঙ্কা করছেন অনেকে। এমনকী ডেল্টা ও ওমিক্রন-এর তুলনা টানতেও শুরু করেছেন একাংশ। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, ডেল্টার বিরুদ্ধে যুদ্ধে জেতা বেশ কঠিন ওমিক্রন-এর।
ওমিক্রন স্ট্রেন নিয়ে সতর্ক করলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী। তিনি বলেন, ‘এই নতুন ভ্যারিয়েন্ট করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জেগে ওঠার ইঙ্গিত দিচ্ছে। এই স্ট্রেন ডেল্টার থেকেও বেশি সংক্রামক হতে পারে। তাদের ফের সচেতন হওয়া দরকার, যারা করোনা বিধি অনুসরণ করেছিলেন না। মাস্ককে পকেটে থাকা ভ্যাকসিন বলা হয়। সংক্রমণ রুখতে মাস্ক ব্যবহার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’
করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ মোকাবিলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ৩ ডিসেম্বর থেকে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত জরুরি অবস্থা কার্যকর থাকবে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।
অন্যদিকে আন্তর্জাতিক যাত্রীদের জন্য পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক করেছে যুক্তরাজ্য। শনিবার প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তার সরকারি বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘বিদেশি যাত্রীরা যুক্তরাজ্যে প্রবেশের পরপরই তাদের পিসিআর টেস্ট করা হবে এবং তাদের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ না আসা পর্যন্ত আইসোলেশনে থাকতে হবে।’ অন্যান্য দেশগুলোও তাদের সতর্ক অবস্থান নিশ্চিত করেছে।
এদিকে বাংলাদেশও সতর্ক অবস্থানে যাচ্ছে। ওমিক্রনের বিষয়ে দেশের সব পোর্ট অব এন্ট্রিতে (প্রবেশপথ) সতর্কবার্তা দেয়া হয়েছে। রোববার স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে এই তথ্য জানান সংস্থাটির মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট প্রতিরোধে সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে স্বাস্থ্য বিভাগ।’
ইতোমধ্যেই ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে ভারত। শনিবার স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদিও।
বিশেষজ্ঞদের মতে, সংক্রমণের নিরিখে দক্ষিণ আফ্রিকায় ডেল্টাকে ওমিক্রন যদি ছাড়িয়েও যায়, তার মানে এই নয় যে বিশ্বেও সমানভাবে সংক্রমণ ছড়াবে। যেমন ইউরোপে করোনার আলফা প্রজাতি যে হারে সংক্রমণ ছড়িয়েছিল, দক্ষিণ আফ্রিকায় সেভাবে ছড়ায়নি। ফলে ওমিক্রন ডেল্টার থেকে আরও ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি করবে কি না, তা এখনই সঠিক সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া কঠিন। এর উত্তর দেবে সময়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ