থিম্পুতে যুবাদের লক্ষ্য চারে চার

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ চ্যাম্পিয়নশিপের মাঝপথে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ম্যাচ জিতে এবং শেষ দুই ম্যাচ সামনে রেখে বৃহস্পতিবার ফুটবলারদের পূর্ণ বিশ্রাম দিয়েছিলেন কোচ। শুক্রবার থেকে আবার মাঠে নামে মাহবুব হোসেন রক্সির শিষ্যরা। তিনদিন পর যে নেপাল-পরীক্ষা।
প্রতিযোগিতার প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন নেপালের শুরুটা ভালো হয়নি, অপ্রত্যাশিতভাবে হেরেছে ভুটানের কাছে। তবে শুক্রবার মালদ্বীপকে হারিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে তারা। বাকি তাদের দুই ম্যাচ। এখনো তাদের শিরোপা ধরে রাখার গাণিতিক সম্ভাবনা আছে। নিশ্চয়ই তারা পরের ম্যাচে মরন কামড় দেবে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে।
দুই ম্যাচ জেতা বাংলাদেশ নিশ্চয়ই সে সুযোগ দেবে না নেপালিরা। শুক্রবার ভুটানের রাজধানী থিম্পু থেকে দলের কোচ মাহবুব হোসেন রক্সি জাগো নিউজকে জানান, যেখানে দাঁড়িয়ে সেখান থেকে পেছনে তাকানোর সুযোগ নেই। সামনে দুই ম্যাচ, দুটিই জিততে চাই, জিততে হবে। আগের দুই ম্যাচ জিতে আমরা ভালো অবস্থানে আছি। এখন আমাদের চোখ বাকি দুই ম্যাচে। ওই দুই ম্যাচ জিতেই চ্যাম্পিয়ন হতে চাই’। শুক্রবার সকালে ভুটান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ভবন সংলগ্ন টার্ফে ছেলেদের অনুশীলন করিয়ে বিকেলে চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে গেছেন নেপাল-মালদ্বীপ ম্যাচ দেখতে। প্রথম ৬৫ মিনিট ম্যাচ দেখে হোটেলে ফিরে শিষ্যদের নিয়ে বসেন টিভি সেটের সামনে ভারত-নেপাল ম্যাচ দেখতে।
কেমন দেখলেন নেপালের খেলা? ‘নেপাল ভালো দল। ওদের সঙ্গে যেহেতু পরের ম্যাচ তাই সবাইকে নিয়ে স্টেডিয়ামে গিয়েছিলাম। ওদেরকে নেপালের খেলার কিছু কৌশল দেখালাম। থিম্পু আসার আগে বলেছিলাম একমাত্র আমরাই কম প্রস্তুতি নিয়ে টুর্নামেন্ট খেলতে যাচ্ছি।
নেপালতো প্রথম ম্যাচে অনেক ভালো খেলে হেরেছে ভুটানের কাছে। নেপালের একটা সুবিধা ভুটানের কন্ডিশন প্রায় তাদের মতোই। এখানকার উচ্চতায় ওদের কোনো সমস্যা হয় না’-বলেছেন বাংলাদেশ যুব দলের কোচ।
নেপাল ও ভুটানের মধ্যে কোন দলকে প্রধান প্রতিপক্ষ মনে করছেন? মাহবুব হোসেন রক্সি সেভাবে কোনো দলকে আলাদা না করলেও স্বাগতিকদের একটু এগিয়ে রাখছেন ‘ভুটানকে একটু কঠিন মনে করছি। কারণ ওদের ডিফেন্স খুবই শক্ত। খেলোয়াড়রা কৌশলীও। তারা দুটি ম্যাচই কৌশলে বের করে নিয়েছে। এখন টেবিলে আমাদের সমান পয়েন্ট। তবে আমরা আগের দুই ম্যাচে যেমন খেলেছি তেমন খেলতে পারলে কোনো সমস্যা হবে না। আমরা চার ম্যাচ জিতেই চ্যাম্পিয়ন হতে চাই’।