দংশনের পর বিচলিত না হয়ে নিয়েছেন সঠিক চিকিৎসা II রাসেল ভাইপারে দংশিত সেই কৃষক হেফজুল এখন পুরোপুরি সুস্থ

আপডেট: জুন ২৪, ২০২৪, ১১:১৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার পিরোজপুর গ্রামের কৃষক হেফজুল হক। ঘাস কাটার সময় গালে কামড় দেয় বিষধর রাসেলস ভাইপার সাপ। এরপর সাপসহ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসেন তিনি। কয়েক সপ্তাহর চিকিৎসা শেষে বর্তমানে তিনি পুরোপুরি সুস্থ।

জানা যায়, গত ৩১ শে মে জমিতে ঘাস কাটার সময় একটি সাপ দেখতে পেয়ে নিজেই সাপটিকে আক্রমণ করে বসেন। নীচু অবস্থাড থাকায় ডান চোয়ালে কামড় দিয়ে দেয় সাপ। উনি সাপটিকে মেরে পলিথিন ব্যাগে করে একজনের মোটর সাইকেল যোগে প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চলে আসেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাৎক্ষণিকভাবে আইসিইউতে রেফার্ড করেন। এরপর আইসিইউতে আসতে সময় লেগেছিল প্রায় দেড় ঘন্টা।

পুরোপুরি সুস্থ হওয়ায় মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহী কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসকদের সঙ্গে দেখা করতে পরিবারসহ এসেছিলেন এক কৃষক।
হেফজুল হক বলেন, আমি এখন পুরোপুরি সুস্থ। পরিবার নিয়ে ভালোই দিন কাটছে। সাপ নিয়ে কোন আতঙ্কও আমার নেই।

রামেক হাসপাতালের আইসিইউ ইনচার্জ মোস্তফা কামাল বলেন, ২০১২ সাল থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে প্রতি বছর রাসেল ভাইপারসহ অন্য সাপ দংশিত হয়েও অসংখ্য রোগী চিকিৎসা পেয়ে চলেছেন। যারা সাপে কামড়ানোর ২ ঘন্টার মধ্যে আমাদের এখানে আসতে পেরেছে তাদের প্রায় সবাই সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে।

তবে দেরিতে চিকিৎসা পাওয়া রোগীদের প্রায় সবারই ডায়ালাইসিসের প্রয়োজন হয়েছে। অনেকের আক্রান্ত স্থানে পচন ধরেছে। তাই আমরা সবসময় পরামর্শ দেয় যে, দংশনের পর যেন অতিদ্রুত হাসপাতালে আসেন। এতে সঠিক চিকিৎসা হবে। রোগীর প্রাণ বিপন্ন হবে না। আর সাপ সংশন নিয়ে এখন আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। এখন বিনামূল্যেই সরকার চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ