‘দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশ ভালো করবে’

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৭, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


দক্ষিণ আফ্রিকায় ৯ বছর পর দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। মুশফিকদের এই দলটির বেশ কয়েকজন দক্ষিণ আফ্রিকায় খেললেও সুখস্মৃতি নেই কারও। অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ছুটিতে যাওয়ায় টেস্ট সিরিজে তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। সবকিছু মিলিয়ে বেশ কঠিন পরিস্থিতির মুখেই পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তারপরও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর বিশ্বাস বাংলাদেশ ভালো করবে।
অতীতে ভালো স্মৃতি না থাকলেও ৯ বছরে বাংলাদেশের ক্রিকেটের অবস্থা অনেক বদলে গেছে। এটাই আশাবাদী করে তুলছে মিনহাজুল আবেদিনকে, ‘৯ বছর আগের ও এখনকার ক্রিকেটের মধ্যে কিন্তু পার্থক্য রয়েছে। এখন দল অনেক পরিণত, অনেক বেশি টেস্ট খেলেছে। পাশাপাশি ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি খেলেছে। গত কয়েক বছরে আমরা অনেক ভালো ভালো খেলোয়াড় পেয়েছি। টেস্ট ক্রিকেটে গত এক বছরের ধারাবাহিকতায় আমরা আত্মবিশ্বাসী যে ভালো কিছু হবে।’
অবশ্য ভালো কিছু বাংলাদেশের হাতে এমনি এমনি আসবে না স্বীকার করছেন প্রধান নির্বাচক। কঠিন চ্যালেঞ্জ নিতে হবে দলকে। তবে বেশ কয়েকজন কন্ডিশন সম্পর্কে ধারণা পেয়েছে আগেই, তাই আশা দেখছেন মিনহাজুল আবেদিন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার কন্ডিশন পুরোপুরি ভিন্ন। তারপরও কন্ডিশন সম্পর্কে আমাদের ধারণা রয়েছে। বাউন্সি এবং ফাস্ট ট্র্যাকে খেলতে হয়। অবশ্যই আমাদের জন্য এটা চ্যালেঞ্জিং সিরিজ। আমরা আশা করি, গত এক-দেড় বছরে যেভাবে ধারাবাহিক ক্রিকেট খেলছি দক্ষিণ আফ্রিকাতেও সেভাবে ভালো ক্রিকেট খেলতে পারব।’
অস্ট্রেলিয়া সিরিজে বাংলাদেশ টপ অর্ডার ব্যর্থ হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে দুঃচিন্তায় আছেন প্রধান নির্বাচকও, ‘খেলোয়াড় ফর্মে না থাকলে দুঃচিন্তা থাকবেই। তারপরও আমি মনে করি স্পিনিং ট্র্যাক আমাদের জন্য খেলা কঠিন ছিল। ওখানে বাউন্সের পাশাপাশি অনেক গতি সম্পন্ন উইকেটে খেলা হবে। আমাদের টপ অর্ডারে যারা আছে, তাদের সামর্থ্য আছে ভালো করার। আমি আশা করি শিগগিরই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা রানে ফিরবে।’
সাকিব ছুটি নেওয়ার পর মিরপুরের বাতাসে নতুন ডাল-পালা মেলেছে তামিমও ওয়ানডে সিরিজে ছুটিতে যাচ্ছেন! যদিও এর সত্যতা কোথাও খুঁজে পাওয়া যায়নি। প্রধান নির্বাচকও এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না, ‘এ বিষয়ে কোনও ধারণা নেই। আমরা যে দল নির্বাচন করেছি, সেই দল পুরো সফরের জন্য যাচ্ছে। ওয়ানডে দল আমরা টেস্টের মধ্যে ঘোষণা করব। তামিমও আমাদের এরকম কিছু বলেনি।’
ব্যাট ও বল হাতে দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য সাকিব। তাকে ছাড়াই টেস্ট সিরিজ খেলতে ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে রওনা হবে বাংলাদেশ। এই সিরিজে সাকিবের অভাব কতটা থাকবে এমন প্রশ্নে মিনহাজুল আবেদিন বলেছেন, ‘অবশ্যই, অভাব কাজ করবে। খেলোয়াড়দের কোনও জায়গায় ফাঁক-ফোকর থাকলে, সবার মধ্যে এ উদ্দীপনা অবশ্যই আসবে যে সাকিব নেই। তখন সবাই চেষ্টা করবে এই ঘাটতি পুষিয়ে নেওয়ার। সেই হিসেবে মনে করি, খেলোয়াড়রা যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী। ভালো ক্রিকেট খেলার জন্য মুখিয়ে আছে তারা।’ প্রোটিয়াদের ডেরায় বল হাতে ক্ষিপ্র গতিতে দৌঁড়াতে প্রস্তুত তাসকিন-মোস্তাফিজরা, ‘আমাদের পাঁচজন ফাস্ট বোলার আছে, তাদের জন্য যথেষ্ট সুযোগ আছে ভালোভাবে পারফর্ম করার। আমাদের পেসরারা এখন যথেষ্ট পরিণত। আশা করি ওখানে তারা ভালো করতে পারবে।’-বাংলা ট্রিবিউন