দশ সন্তানের জন্ম দিলে আর্থিক পুরস্কার! জনসংখ্যা বাড়াতে নয়া দাওয়াই পুতিনের

আপডেট: আগস্ট ১৮, ২০২২, ১:৪৬ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


এবার অন্তত দশটি করে সন্তানের জন্ম দিতে হবে রুশ নারীদের। সেই কাজের ‘পুরস্কার’ হিসাবে কিছু টাকা দেওয়া হবে ওই নারীদের। জানা গিয়েছে, গোটা পরিকল্পনা করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন স্বয়ং! কোভিড অতিমারীর পরেই ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে রাশিয়া।

মূলত এই দুটি কারণেই সেদেশের জনসংখ্যা ব্যাপক ভাবে কমে গিয়েছে। দেশকে জনবহুল করে তুলতেই নয়া দাওয়াই পুতিনের। তবে এই প্রকল্প ঘিরে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন বিশেষজ্ঞরা।

ঠিক কী পরিকল্পনা করেছে রাশিয়া? সেদেশের নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ জেনি ম্যাথার্স জানিয়েছেন, দশটি সন্তানের জন্ম দিতে হবে প্রত্যেক রুশ মহিলাকে। তাঁর দশম সন্তানের এক বছর বয়স হওয়ার পরেই এককালীন টাকা দেওয়া হবে সরকারের তরফ থেকে।

তবে আর্থিক সহায়তা পাওয়ার অন্যতম প্রধান শর্ত, প্রত্যেকটি সন্তানকে সুস্থ এবং জীবিত থাকতে হবে। সমস্ত বিষয় খতিয়ে দেখে এক মিলিয়ন রুবল দেওয়া হবে রুশ সরকারের পক্ষ থেকে। ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় তেরো লক্ষ টাকা। এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে মাদার হেরোইন।

জানা গিয়েছে, রাশিয়ায় কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। তার পাশাপাশি ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে অন্তত পঞ্চাশ হাজার রুশ সেনার মৃত্যু হয়েছে। পুতিনের মতে, যেসব মানুষের পরিবার খুব বড়, তারাই প্রকৃত দেশপ্রেমিক। জেনি আরও জানিয়েছেন, ১৯৯০ সালের পর থেকেই রাশিয়ার জনসংখ্যার বৃদ্ধি সেভাবে হচ্ছে না। তাই রুশ সরকার মরিয়া হয়ে চেষ্টা করছে যেন দেশের জনসংখ্যা বাড়ানো যায়।

এই প্রকল্প সফল হবে বলেই অনুমান করছেন রুশ বিশেষজ্ঞরা। তিনি বলেছেন, “এই প্রকল্পের ফলে রুশ মহিলারা উৎসাহ পাবেন। অধিক সংখ্যায় সন্তানের জন্ম দিয়ে দেশের প্রতি অবদান রাখবেন তাঁরা।”

কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, মাত্র তেরো লক্ষ টাকা দিয়ে কি দশটি সন্তানকে প্রতিপালন করা সম্ভব? এমনিতেই যুদ্ধের ফলে রুশ অর্থনীতির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তারপরে এতগুলি সন্তানের ভরণপোষণ কীভাবে সম্ভব? তাছাড়াও শারীরিকভাবে একজন মহিলার পক্ষে কি সম্ভব এতগুলি সন্তানের জন্ম দেওয়া?
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ