দিনাজপুরে ১২শ মণ্ডপে আসন্ন দুর্গাপূজা || ঝুঁকিপূর্ণ ২৫৩টি, নিরাপত্তা জোরদার

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৭, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ

দিনাজপুর প্রতিনিধি


ছবি: ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত

দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলায় এবার হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা এক হাজার ২১০টি মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হবে। গতবারের চাইতে পূজার সংখ্যা বেড়েছে ৩২টি। অধিক ঝুঁকিপূর্ণ ২৫৩টি, ঝুঁকিপূর্ণ ৩১৮টি ও সাধারণ ৬৩৯টি মণ্ডপ রয়েছে।
দিনাজপুর পুলিশ কন্ট্রোল রুম সূত্রে জানা যায়, এবছর জেলার ১৩টি উপজেলায় ১২১০টি মন্ডপে হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপুজার আয়োজন প্রায় চুড়ান্ত করা হয়েছে। গতবারের চাইতে এবার ৩২টি মন্ডপে পুজার সংখ্যা বেশি।
দিনাজপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের বিশেষ শাখার পরিদর্শক মাসুদ আল হাসান চৌধুরী জানান, জেলায় এবারে সদর উপজেলায় ১৫৯টি, বিরলে ৯৪টি, বোচাগঞ্জে ৮৫টি, চিরিরবন্দরে ১৪৩টি, বীরগঞ্জে ১৫২টি, পার্বতীপুরে ১৪৯টি, কাহারোলে ৯৮টি, খানসামায় ১১৪টি, ফুলবাড়ীতে ৫২টি, বিরামপুরে ৩৬টি, নবাবগঞ্জে ৭৪টি, হাকিমপুরে ২০টি এবং ঘোড়াঘাট উপজেলায় ৩৪টি পুজা মন্ডপে যাবতীয় প্রস্তুতি চুড়ান্ত করা হয়েছে।
দিনাজপুরের পুলিশ সুপার হামিদুল আলম জানান, গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টের ভিত্তিতে ২৫৩টি পুজা মন্ডপকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। জেলার ১৩টি উপজেলায় ঝুঁকিপূর্ণ মন্ডপের সংখ্যা ৩১৮টি। আর ঝুঁকিহীন মন্ডপ ৬৩৯টি। মন্ডপগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থার অংশ হিসেবে পুলিশ, অস্ত্রধারী আনসার ও লাঠিধারী আনসারের পুরুষ ও মহিলা সদস্যদের মোতায়েন করা হয়। এছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। র‌্যাব বিভিন্ন মন্ডপে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে থাকবে।
দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম জানান, আসন্ন শারদীয় দুর্গা পুজা শান্তিপূর্ণ, ত্রুটিমুক্ত ও উৎসবমূখর পরিবেশে সম্পন্ন করতে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। জেলার ১৩টি উপজেলায় পুজা চলাকালীন সময়ে ৫ দিনব্যাপি ২৬জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্র্রেটদের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় ভ্রাম্যমাণ টিম গঠন করা হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্র্রেটের নেতৃত্বে র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। সব মিলিয়ে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপুজা শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।
জেলা পুজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি স্বরূপ বকসী বাচ্চু জানান, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপুজা যেন সম্পন্ন হয় সে ব্যাপারে প্রশাসনের যে কোন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সার্বিক সহযোগিতা দেয়া হবে। প্রত্যেকটি মন্ডপে স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্যরা এব্যাপারে সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ